স্বাস্থ্যের জন্য চুম্বন ! ! !

Posted: মার্চ 16, 2012 in না জানা ঘটনা, ভালবাসার টিপস, Top News
ট্যাগসমূহ:

চুম্বন! নারী আর পুরুষ সম্পর্কের এক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অনুভূতির অভিব্যক্তি। বলা হয়ে থাকে প্রেমের নীরব নিঃশব্দ ভাষা চুম্বন। দুটো ঠোঁটের সংস্পর্শে এতখানি অনুরাগ ও অনুভূতি চলাচল করে যা ভাষায় ব্যাখ্যা দেয়া যায় না। নারী আর পুরুষের মধ্যকার ভালোবাসা প্রকাশে চুম্বনের কোনো বিকল্প নেই।

কিন্তু আমাদের সমাজ প্রেক্ষাপটে, দেশের সংস্কৃতির মুখপাত্র সেন্সর বোর্ড চুম্বনে যতটা নেতিবাচক দৃষ্টিতে দেখে থাকে, তাতে চুম্বনকে ঘিরে সহজাত বহিঃপ্রকাশ ক্ষুণ্ন হতে বাধ্য। আমাদের সংস্কৃতিতে চুম্বন পাশ্চাত্যের মত তাৎক্ষণিক আনন্দ অনুরাগের বহিঃপ্রকাশ পশ্চিমা সমাজে সাধারণ সহজাতভাবে ঘটে। এটিকে চুম্বন বা মল্যবোধের অবমূল্যায়ন বলা অনুচিত। সে সব দেশ ওপেন সেক্সের দেশ হলেও চুম্বনের আদম আর ইভের মত প্রাচীন এ হৃদয়াবেগ এখনও তার ভাবপ্রকাশ শক্তিতে অমলিন আর অনিবার্য।

হাজারো প্রকাশ!

চুম্বন কেবলি প্রিয়ার ঠোঁটে বা মুখে ঠোঁটের স্পর্শ? চুম্বনের এটি একটি স্বরূপ কিন্তু্তু এটিই সবকিছু নয়। এর হাজারো প্রকাশ তা হতে পারে আধ্যাত্মিক, ধার্মিক, শোনিত ও অশ্রুর ভাষা, দৈব মানবিকতা। স্থান কাল পাত্রভেদে। চুম্বন ভাবময়তার পরিবর্তন ঘটে। যেমন বিদায় মুহর্তের চুম্বনের অর্থ ভালো থেকো। পুনর্মিলনের সময় চুম্বনের অর্থ তুমি এলে। শুতে যাবার সময় শিশুর কপালে চুম্বন যেন শিশুর জন্য নিশ্চিত ঘুমের গ্যারান্টি, শিশুর শরীরে কোথাও ব্যথা লাগলে মা যখন সেই ব্যথার জায়গায় চুমু দেন তখন চুম্বন হয়ে দাঁড়ায় সবচেয়ে কার্যপ্রদ ব্যথানাশক। সাংস্কৃতিক আঙ্গিকে চুম্বনের সাথে নানান প্রকাশ। আমরা এক্ষেত্রে কেবলমাত্র চুম্বনের মনোদিক আলোকপাত করব।

সুখের স্মৃতি!

যে সব ঘটনার সাথে মনের আবেগ জড়িয়ে আছে সে সব স্মৃতি সহজে বিস্মৃতি গহ্বরে হারিয়ে যায় না। তা সারাজীবনই একদম ঝরঝরে থেকে যায়। ঠিক এমনি এক অভিজ্ঞতা প্রথম চুম্বন যতই সময় গড়িয়ে যায় ততই মল্যবান হয়ে দাঁড়ায় প্রথম অভিজ্ঞতাগুলো। প্রথম চুম্বনই এতে একমাত্র নয়, তা হতে পারে প্রথম প্রেমপত্র, প্রথম প্রেমালাপ, প্রথম সপর্শ। তাইতো সারা পৃথিবীর সমস্ত সাহিত্য জুড়ে এদের জয়গান।

আহা কি মজা!

ঠোঁটের কোমল ত্বক বসিয়ে যে চুম্বন তা এত বেশি মোহনীয় কেনো? হৃদয়াবেগ প্রকাশে কেনো এর এত মহিমা? এর আসল মহাত্ম কোন জায়গাতে-ঠোঁটে না হৃদয়ে? ঠোঁটের সাথে ঠোঁট মেলানোর ক্ষেত্রে হৃদয়োচ্ছ্বাস বন্যাটাই মেলে না অন্য কিছু। ঠোঁট কি কেবলি প্রতীকী? ব্যাপারটা কি পুরোপুরি মনের? যুক্তিবাদী বিজ্ঞানীদের ভাষ্য হল মনের আবেগ বাড়তি সুধার সম্ভার ঘটাতে পারে কিন্তু্তু মনই সবকিছু নয়। হতে পারে সাইকোলজিক্যাল, কিন্তু ফিজিওলজিকে উড়িয়ে দেবার জো নেই।

(১) ঠোঁটের কথাই ধরুন। ঠোঁটের ত্বক হল দেহের সবচেয়ে পাতলা ত্বক। দেহের বাইরের দিককার ত্বকের সবকটা অংশ করনিয়াম নামের আবরণে আবৃত থাকে। ঠোঁট এতে একমাত্র ব্যতিক্রম, তাইতো ঠোঁটের ত্বক এত বেশি কোমল, নমনীয়।

(২) কেবলমাত্র তা নয়, ত্বকের সংবেদনশীলতা নিয়ন্ত্রণের যে সংবেদী অন্তণু বিদ্যমান, তাদের ঘনত্ব ঠোঁটের ত্বকে অন্য যে কোনো জায়গার চেয়েও অনেক বেশি। ঠোঁটের সংবেদনশীলতা সরাসরি মস্তিষক দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। ঠোঁট দেহের অন্য যে কোনো জায়গা অপেক্ষা অনেক বেশি স্পর্শকাতর। মুখ আর ঠোঁট দেহের অন্যান্য যে কোনো অংশ হতে অন্য একটা বাড়তি গুরুত্ব রাখে তা হল মস্তিষেকর সংশিস্নষ্ট অঙ্গগুলো অনেক বেশি বিকশিত। আমাদের মস্তিষেকর এক এক অংশ দেহের এক একটা জায়গা নিয়ন্ত্রণ করে রাখে।

ফ্রয়েড যেমনটি বলেছিলেন!

চুম্বনের আলাপচারিতায় না আনা হলে তা কোনো মতেই পূর্ণতা পায় না। ফ্রয়েড ঊনবিংশ শতাব্দীর একদম শুরুতেই মানব আচরণ সম্পর্কে এমন সব অভিনব ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন যা চারিদিকে সাড়া ফেলে দেয়। ফ্রয়েড ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন, জন্মানোর পরে বাচ্চা যখন স্তনপান করে তখন সে যে আনন্দ পায় তা কেবলমাত্র পেট ভরার আনন্দ নয়। মুখ দিয়ে টানার যে ব্যাপার থাকে তাতেও বাচ্চারা আনন্দ পায়, আসলে ঠোঁট বা মুখে বা মুখের মধ্যে আরেকজনের শরীরের উষ্ণতা মানুষকে আনন্দ দান করে, একটা মানসিক শান্তি ও মজা পায় মানুষ।

ফরাসি চুম্বন

এইডস যুগে ‘ফরাসি চুম্বন’ প্রসঙ্গ বেশ আলোচিত সমালোচিত। কারণ এটি নাকি এইডস ছড়াতে পারে। সাধারণ চুম্বনে কি এইডস ছড়ায় না? তাহলে সাধারণ চুম্বন হতে এ ফরাসি চুম্বনের বাড়তি বিশেষত্ব কি? আসলে সাধারণ চুম্বনে ঠোঁটের সাথে ঠোঁটের সপর্শ ঘটানো হয়। কিন্তু ফরাসি চুম্বনে কেবলমাত্র ঠোঁটের সপর্শ ঘটে না, জিহ্বাও এতে সক্রিয় ভূমিকা নেয়। জিহ্বার সাথে জিহ্বার মিলন মানে তো লালার আদান প্রদান। ঘাতক এইডস জীবাণু কিন্তু আক্রান্তদের লালাতে ঘুরে বেড়ায়। সুতরাং অসতর্ক হলে বিপদ ঘটে যেতে পারে। এক্ষেত্রে কি ফরাসি চুম্বন একদম বন্ধ করে দিতে হবে? নিয়ম হল এটি আপনার অতি নিকটের অন্তরঙ্গ মানুষটির জন্য সংরক্ষণ করুন।

ফেসবুকে আমি

 [ ভাল লাগলে পোস্ট এ  অবশ্যই লাইক দিবেন , লাইক দিলে আমাদের কোনো লাভ অথবা আমরা কোনো টাকা পয়সা পাই না, কিন্তু উৎসাহ পাই, তাই অবশ্যই লাইক দিবেন । ]

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s