সুন্দর চুলের রহস্য

Posted: এপ্রিল 9, 2012 in স্বাস্থ্য টিপস

আপনার চুল আপনার সুন্দরতার পরিচয় বহন করে৷ চুলের গুণগত মানকে বাড়াবার জন্যে আপনি অনেক কিছু করতে পারেন৷ নিয়মিতভাবে চুলকে ভালো করে পরিষ্কার করা দরকার৷ সেই জন্যে আপনি বিভিন্ন ধরনের শ্যাম্পু ব্যবহার করতে পারেন৷ তবে শ্যাম্পু ব্যবহারে করলে সকল সমস্যার সমাধান হবে না। তার জন্যে আরো কিছু নিয়্ম কানুন মেনে চলার দরকার আছে৷

চুলেতে শ্যাম্পু করার আগে ডিমের যে সাদা অংশটি থাকে তার সাথে পাতি লেবুর রস মিশিয়ে চুলেতে লাগিয়ে রেখে দিন৷ তার পরে চুলকে ভালো করে ধুয়ে নেবেন৷ এরপর দেখবেন যে আপনার চুল অনেকে বেশী উজ্জ্বল এবং ফেঁপে উঠেছে৷ শুধু চুল ধোবার আগে সকল রকম যত নিলে হবেনা৷ চুল ধোবার পরেও কতকগুলি নিয়ম কানুন মানলে ভালো হয়৷

আপনার চুলে শ্যাম্পু করে ধুয়ে নেবার পর একটি মগে অল্প পরিমাণে পানির সাথে কিছুটা ভিনিগার ভালো করে মিশিয়ে নেবেন৷ এইবার এই পানি দিয়ে মাথার চুলকে ভালো করে ধুয়ে নেবেন৷ এর ফলে দেখবেন যে আপনার চুল আগের থেকে অনেক বেশী পরিমাণে চকচকে হয়ে গেছে৷ চুলের চমক বাড়ানোর একটি সহজ উপায় আছে যার মাধ্যমে অতি সহজেই চুল আরো সুন্দর হয়ে উঠবে৷

আপনি এক কাপ বিয়ারকে ভালো করে ফুটিয়ে নিয়ে বেশী পরিমাণে ঘন করে নিন৷ এবার এই বিয়ারের সাথে আপনি যেকোনো শ্যাম্পুকে মিশিয়ে নিয়ে একটি জলীয় অংশ বানিয়ে নিন৷ এইবার এই মিশ্রনটি দিয়ে ভালো করে চুলকে ধুয়ে নেবেন এবং তারও কিছুক্ষণ পর ভালো করে পরিষ্কার পানি দিয়ে চুলকে ধুয়ে নেবেন৷

চুলের যত্নে চুল পরিষ্কার রাখার জন্য শ্যাম্পু অপরিহার্য উপাদান। হিন্দি শব্দ চ্যাম্পু থেকে শ্যাম্পু এসেছে। এর অর্থ মালিশ বা ম্যাসাজ। এর মানে বোঝা যায় শ্যাম্পু করার সময় আপনার মাথা ম্যাসাজ বা ঘষতে হবে।

চুলের ধরন অনুযায়ী শ্যাম্পু বেছে নিতে হবে। তৈলাক্ত চুলে যেমন প্রায় প্রতিদিন শ্যাম্পু করা প্রয়োজন আবার শুষ্ক চুলে তা নয়। হেয়ার স্টাইল, জীবনযাত্রার মান, পরিবেশ দূষণ, আবহাওয়া এগুলোর ওপরে নির্ভর করে আপনি সপ্তাহে কতবার শ্যাম্পু করবেন।

তৈলাক্ত চুল, প্রচুর শারীরিক পরিশ্রম, দূষণ, প্রতিদিন বাইরে যাওয়া এমনটা যদি হয় আপনার জীবনযাত্রা তবে প্রতিদিন শ্যাম্পু করতে হবে। কিন্তু অন্যদের ক্ষেত্রে সপ্তাহে দু’দিন শ্যাম্পু ব্যবহার যথেষ্ট। চুলে ময়লা ভাব, মাথা চুলকাচ্ছে এমন হলে সাথে সাথে শ্যাম্পু করবেন। প্রতিদিন প্রয়োজনে শ্যাম্পু করলে চুল পড়ে এটা ভুল ধারণা। তবে অপ্রয়োজনে শ্যাম্পু করলে চুল শুষ্ক হয়ে ওঠে ও চুল ভেঙে যায়।

এছাড়া সূর্যতাপ, লবণ পানি, ক্লোরিনযুক্ত পানি চুলের ক্ষতি করে। এরকম হলে যথাযথ শ্যাম্পু ব্যবহার করে চুলের লবণ ভাব, ক্লোরিন ইত্যাদি দূর করতে হবে।

শ্যাম্পু করার পদ্ধতিঃ ঢ় হালকা গরম পানিতে সম্পূর্ণ চুল ভিজিয়ে নিন।

হাতে শ্যাম্পু ঢেলে নিন এবং দু’হাতে ঘষে নিয়ে তারপর পুরো মাথায় লাগান। ঢ় আঙুলের ডগা দিয়ে ম্যাসাজ করে শ্যাম্পু লাগান।

প্রয়োজনে চুল লম্বা হলে আবার শ্যাম্পু নিয়ে হাতে ঘষে তারপর চুলে লাগান। ঢ় এভাবে কিছুক্ষণ হালকাভাবে ঘষার পরে চুল প্রচুর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ঢ় প্রয়োজনে পুনরায় শ্যাম্পু ব্যবহার করবেন।

চুল পরিষ্কার হয়েছে কি না, তৈলাক্ত ভাব কেটেছে কি না, আপনি হাত দিয়েই তা বুঝবেন।

শ্যাম্পু পরিষ্কার করার জন্য প্রচুর পানি দিয়ে ধোবেন যাতে শ্যাম্পুর অবশিষ্ট অংশ চুলে লেগে না থাকে।

শ্যাম্পু করার পর চুল খুব বেশি ঘষাঘষি না করে নরম তোয়ালে দিয়ে পেঁচিয়ে রাখবেন।
মোটা দাঁতের চিরুনি দিয়ে হালকাভবে চুল আঁচড়ে রাখবেন। ব্রাশ ব্যবহার করবেন না।

 [ ভাল লাগলে পোস্ট এ  অবশ্যই লাইক দিবেন , লাইক দিলে আমাদের কোনো লাভ অথবা আমরা কোনো টাকা পয়সা পাই না, কিন্তু উৎসাহ পাই, তাই অবশ্যই লাইক দিবেন । ]

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s