Archive for the ‘উইন্ডোজ’ Category


আজকে দেখাবো কিভাবে আপনি একদম ২ টা শব্দের একটি কোডিং দিয়ে আপনার উইন্ডোজ ৭ কে কোন প্রকার কিজেন, সিরিয়াল কি, ক্র্যাক করা ছারাই জেনুইন করতে পারবেন। একদম আনাড়ি টাইপ এর হলেও আপনি পারবেন এটি করতে।

১) প্রথমে স্টার্ট মেনুতে গিয়ে লিখুন cmd তারপরে cmd দেখা গেলে রাইট ক্লিক করে run as administrator এ ক্লিক করে ওপেন করুন। ছবিতে দেখুন।

২) CMD ওপেন হলে এখন আপনার কাজ হয়েছে একটি কমান্ড লিখা. ছবির মত কমান্ড টি লিখে এন্টার চাপুন .তারপরে পিসি রিস্টার্ট মারেন .  তাহলে আপনার windows ৭ পিসি ৩০ দিনের জন্য জেনুইন বা একটিভ হয়ে যাবে . একই ভাবে আপনি পর পর ৪ বার এই কমান্ড বেবহার করে মোট ১২০ দিনের জন্য একটিভ করে নিতে পারবেন আপনার পিসিকে এবং কোনো প্রকার ঝামেলা ছাড়াই পিসি চালান শান্তিতে .


আমি বেশী কিছু পারী না কিন্তু যা পারী তা আপনাদের সাথে শেয়ার করতে চাই।

১। Start>All Programs> গিয়ে যে প্রোগ্রামটি কিবোডের মাধ্যমে সটকাট ব্যবহার করতে চান সেই ফাইটির যেটা রান হয় সেটার Properties এ যান,

২। আপনি কিবোডের যে Shortcut Key [ চাবিটা  ] দিয়ে ওপেন করবেন তা,  Shortcut Key : Ctrl +Alt+pএখানে দিন  ।

এবং Apply> Ok দিয়ে বেরিয়ে আসুন।  আপনি যেচাবিটা দিয়েছেন , তা দিয়ে প্রোগ্রামটি  ওপেন করুন ।


অনেক সময় কম্পিউটারের গতি কমে যায়, যার ফলে My computer খুলতে দেরি হয়। এ রকম হলে Start/Run-এ গিয়ে regedit লিখে Enter চাপুন। এখন HKEY_CURRENT_USER\ Control Panel\Desktop অপশনে যান। বা পাশের MenuShowDelay অপশনে দুই ক্লিক দিন এবং ডান ক্লিক দিয়ে modify অপশনে যান। এখন Value data হিসেবে 100 লিখে ok করে বের হয়ে আসুন। এরপর থেকে My computer খুলবে দ্রুত।

ফেসবুকে আমি

 


জিনিস টা আমার কাছে একটু নতুন মনে হল তাই আপনাদের সাথে শেয়ার করলাম ।

এবার কাজের কথাই  আসি ।এর মাধ্যমে আপনি হেডফোন দিয়ে পিসি চালাতে পারবেন । মাউস কিবোর্ড এর কোন প্রয়োজন নাই । আর এটা খুব সহজ । এর মাধ্যমে আপনার ইংরজিতে দক্ষতা বাঢ়বে। এটাই আপনি শুধু মুখ দিয়ে হেডফোনে কথা  বলবেন আর যা করার পিসি করবে । বিশ্বাস না হলে টেরাই করে দেখেন । আর এটা করার জন্য যা করা লাগবে …….

প্রথমে Control Panel এ যান ।

এরপর  Ease of Access ।

এরপর    Speech Recognition ।

এরপর start  Speech Recognition এ কিলিক করে start করুন ।

আপনার কাজ শেষ । এখন ভাল মত জাণার জন্য নিচের গুলা অনুসরণ করুন ।

এবার ট্রেনিং এ পালা ।

এরপর set up a microphone click করুন । < next < next < এরপর এই লাইন টা পুরাপুরি পড়েন  peter dictates to his computer …….

ঠিকমত পড়া হলে আবার finish আসবে

এরপর take speech tutorial  এ ক্লিক করে আপনার কন্ঠসর কম্পিউটার কে জানিয়ে দিন এভাবে

এখানে  যা বলে তা অনুসরন করুন । অবশ্যই মাওস বা কিবোর্ড use করবেন না । হেডফোন  দিয়ে বলবেন । এটা ভাল মত শেষ করতে পারলে আপনি এবার মাওস বা কিবোর্ড কে টা টা জানাতে পারেন । এখানেই আপনি অনেক নিয়ম শিখে যাবে নন । তাই এটা মনযোগ দিয়ে পড়বেন । পারলে কয়কেবার ।

এরপর  train your computer to better understand u  কিলিক করনে ।  এখানে দুই টা টপিক পাবেন । একটা শেষ হলে আরেকটা পাবেন ।

দুই  no টপিক

এভাবে শেষ করুন ।

এবার দেখি এটা কি ভাবে কাজ  করে ।  যেমন আমি my gallary তে কিলিক করবো । তাই বললাম click my gallury , r তখন এই টা আসবে

এর ১ বললেএই টা আসবে ,

এবার ok বলুন । দখবনে inter  হয়ছে ।

এভাবে অন্য ফোল্ডার গুলো ওপনে করতে পারবেন ।

ফেসবুকে আমি


F1 : সহায়তাকারী কি হিসেবে ব্যবহূত হয়। F1 চাপলে প্রতিটি প্রোগ্রামের ‘হেল্প’ চলে আসে। F2 : সাধারণত কোনো ফাইল বা ফোল্ডারের নাম বদলের (রিনেম) জন্য ব্যবহূত হয়। Alt+Ctrl+F2 চেপে মাইক্রোসফট ওয়ার্ডের নতুন ফাইল খোলা হয়। Ctrl+F2 চেপে ওয়ার্ডে প্রিন্ট প্রিভিউ দেখা যায়। F3: এটি চাপলে মাইক্রোসফট উইন্ডোজসহ অনেক প্রোগ্রামের সার্চ সুবিধা চালু হয়। Shift+F3 চেপে ওয়ার্ডের লেখা বড় হাতের থেকে ছোট হাতের বা প্রত্যেক শব্দের প্রথম অক্ষর বড় হাতের বর্ণ দিয়ে শুরু ইত্যাদি কাজ করা হয়। F4 : ওয়ার্ডের last action performed আবার (Repeat) করা যায় এ কি চেপে। Alt+F4 চেপে সক্রিয় সব প্রোগ্রাম বন্ধ করা হয়। Ctrl+F4 চেপে সক্রিয় সব উইন্ডো বন্ধ করা হয়। F5 : মাইক্রোসফট উইন্ডোজ, ইন্টারনেট ব্রাউজার ইত্যাদি Refresh করা হয় F5 চেপে। পাওয়ার পয়েন্টের স্লাইড শো শুরু করা যায়। ওয়ার্ডের find, replace, go to উইন্ডো খোলা হয়। F6 : এটা দিয়ে মাউস কারসারকে ওয়েব ব্রাউজারের ঠিকানা লেখার জায়গায় (অ্যাড্রেসবার) নিয়ে যাওয়া হয়। Ctrl+Shift+F6 চেপে ওয়ার্ডে খোলা অন্য ডকুমেন্টটি সক্রিয় করা হয়। F7 : ওয়ার্ডে লেখার বানান ও ব্যাকরণ ঠিক করা হয় এ কি চেপে। ফায়ারফক্সের Caret browsing চালু করা যায়। Shift+F7 চেপে ওয়ার্ডে কোনো নির্বাচিত শব্দের প্রতিশব্দ, বিপরীত শব্দ, শব্দের ধরন ইত্যাদি জানার অভিধান চালু করা হয়। F8 : অপারেটিং সিস্টেম চালু হওয়ার সময় কাজে লাগে এই কি। সাধারণত উইন্ডোজ Safe Mode-এ চালাতে এটি চাপতে হয়। F9 : কোয়ার্ক এক্সপ্রেস ৫.০-এর মেজারমেন্ট টুলবার খোলা যায় এই কি দিয়ে। F10 : ওয়েব ব্রাউজার বা কোনো খোলা উইন্ডোর মেনুবার নির্বাচন করা হয় এ কি চেপে। Shift+F10 চেপে কোনো নির্বাচিত লেখা বা সংযুক্তি, লিংক বা ছবির ওপর মাউস রেখে ডান বাটনে ক্লিক করার কাজ করা হয়। F11: ওয়েব ব্রাউজার পর্দাজুড়ে দেখা যায় । F12 : ওয়ার্ডের Save as উইন্ডো খোলা হয় এ কি চেপে। Shift+F12 চেপে মাইক্রোসফট ওয়ার্ডের ফাইল সেভ করা হয়। এবং Ctrl+Shift+F12 চেপে ওয়ার্ড ফাইল প্রিন্ট করা হয়।

ফেসবুকে আমি


আচ্ছালামু আলাইকুম।আশা করি ভাল আছেন সবাই ?

আপনি ইচ্ছা করলে আপনার কপম্পিউটার এর Turn off computer এবং Log Off মেনু লুকিয়ে রাখতে পারেন। কিভাবে করবেন? Turn off computer এবং Log Off মেনু হাইড করতে নিচের পদ্ধতি অনুসরণ করুন।


১। Log Off মেনু হাইড করতে…

প্রথমে start- run এ যান। লিখুন gpedit.msc

Group Policy নামে নতুন একটি ঊইন্ডো open হবে।

এখন User Configuration →Administrative Templates → Start menu and taskbar এ যান।

এখন ডান পাশ থেকে Remove Log off on the StartMenu এ ডাবল ক্লিক করি।

Remove Log off on the StartMenu ঊইন্ডো open হবে।

এখান থেকে Enabled এ সিলেক্ট করি ।

এরপর apply করে ok দিয়ে বের হয়ে আসি।
দেখুন Log Off মেনু উদাও হয়ে গেছে।

Turn off computer এবং Log Off ফিরিয়ে আনতে উপরের নিয়মাবলি অনুসরণ করে শুধুমাত্র Enabled এর জায়গায় Disabled অথবা Not Configured এ সিলেক্ট করতে হবে ।