Archive for the ‘পেন ড্রাইভ’ Category


আজ কম্পিউটার প্রয়োজনীয় কিছু মৌলিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হবে, যা যেকোনো কম্পিউটার ব্যবহারকারীদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ ও সহায়ক।

কম্পিউটারের তথ্য পরিমাপের একক

বাইনারী পদ্ধতিতে ব্যবহৃত অঙ্ক শুন্য (০) এবং এক (১) কে Bit বলে। ইংরেজী Binary শব্দের Bi ও Digit শব্দের t নিয়ে Bit শব্দটি তৈরী হয়েছে। কম্পিউটার স্মৃতিতে রক্ষিত ০ ও ১ এর কোড দিয়ে বিভিন্ন তথ্য সংরক্ষিত থাকে। এ কারণে কম্পিউটারের স্মৃতির ধারণ ক্ষমতার ক্ষুদ্র একক হিসাবে Bit শব্দটি ব্যবহৃত হয়। কম্পিউটার এই ০ ও ১ দ্বারা যে বিশেষ পদ্ধতিতে কাজ করে তাকে কম্পিউটারের যান্ত্রিক ভাষা বলা হয়।

Bit, Byte, KB, MB, GB এবং এর মধ্যে সম্পর্ক

বিট হচ্ছে কম্পিউটারের সংখ্যা পদ্ধতির ক্ষুদ্রতম একক। বাইট দিয়ে সাধারনত স্মৃতির ধারণ ক্ষমতা প্রকাশ করা হয়। এদের মধ্যে সম্পর্ক নিচে তুলে ধরা হলঃ

8 Bit                             =          1 Byte

1024 Bytes                  =          1 Kilobyte (KB)

1024 Kilobytes            =          1 Megabyte (MB)

1024 Megabytes         =          1 Gigabyte (GB)

1024 Gigabytes           =          1 Terabyte (TB)

র‍্যাম ও রম

 

RAM (Random Access Memory) একটি অস্থায়ী স্মৃতি ভান্ডার। Input Device হতে সকল তথ্য RAM এ জমা হয়। প্রধান স্মৃতির এ অংশে যখন তখন নতুন তথ্য লেখা যায়, তথ্য পড়া যায় এবং ইচ্ছা করলে তথ্য মুছে ফেলা যায়। বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকলে অর্থাৎ কম্পিউটার বন্ধ থাকলে, র‍্যামের পূর্বের তথ্য মুছে যায়। র‍্যামের মাধ্যমে তথ্য পড়া ও লেখা উভয় কাজই সম্পাদন করা যায় বলে একে লিখন পঠন স্মৃতিও বলা হয়ে থাকে।

ROM (Read Only Memory) একটি স্থায়ী স্মৃতি ভান্ডার। প্রধান স্মৃতির এই অংশটি স্থায়ী, অপরিবর্তনীয় ও অধংসাত্বক স্মৃতি। Computer এ বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে দিলেও এই স্মৃতিতে রক্ষিত তথ্য মুছে যায় না। রমে নতুন কিছু সংযোজন, সংশোধন বা পরিবর্তন করা যায় না। এই অংশে লিখিত তথ্য শুধুমাত্র পড়া যায়, কিন্তু লেখা যায় না। তাই একে স্থায়ী স্মৃতি হিসেবে অভিহিত করা হয়।

Advertisements

বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষুদ্রাকৃতির পেনড্রাইভ অ্যাপাসার এএইচ ১৩৪ বাজারে এনেছে কম্পিউটার সোর্স।

মাত্র এক ইঞ্চি লম্বা এবং অত্যন্ত পাতলা পেনড্রাইভটির তথ্য ধারণ ক্ষমতা ৮জিবি।

দেখতে চাবির মত পেনড্রাইভটিতে কমপক্ষে দুই হাজার গান সংরক্ষণের পাশাপাশি ভ্রমণে গাড়ির

মিডিয়া প্লেয়ারের ইউএসবি পোর্টে ব্যবহার করা যায়। পেনড্রাইভটির দাম ধরা হয়েছে ৮৫০ টাকা।


সাধারনত পেন ড্রাইভ FAT, FAT 32 ফাইল সিস্টেমে চলে,ফলে এখানে ফাইল compression বা সংকোচনের  কোন সুবিধা পাওয়া যায় না। কিন্তু NTFS ফাইল সিস্টেমে compression সুবিধা রয়েছে।যেমন,৫০ মেগাবাইটের  একটি ফাইল ফরম্যাটের ড্রাইভে মাত্র ৩০ মেগাবাইট জায়গা নেবে।তাই NTFS ফাইল সিস্টেমে পেন ড্রাইভের মেমোরি অনেক সাশ্রয় হয়।আপনার পেন ড্রাইভকে NTFS ফরম্যাটে কনভার্ট করতে Start/Run – এ গিয়ে cmd লিখে কমান্ড খুলন এবং convert X: /FS:NTFS লিখে Enter চাপুন (X এর জায়গায় পেন ড্রাইভ যে ড্রাইভে রয়েছে তার অর হবে,যেমন L ড্রাইভে হলে হবে L)এখন My computer এ গিয়ে পেন ড্রাইভের আইকনে ডান কীক করে Properties এ যান।এখান থেকে ’ Compress Drive to Save Disk Space ’ অপশনে টিক দিয়ে OK করুন,এখন ’ Apply To Sub Folders and Files ’ অপশন (যদি আসে) OK করে বের হয়ে আসুন।ব্যস কাজ শেষ। এখন পেন ড্রাইভে কোন ফাইল কপি করলে সেটা খুব বেশী জায়গা নেবে না,ফলে পেন ড্রাইভের মেমোরি অনেক সাশ্রয় হবে

ফেসবুকে আমি