Archive for the ‘পড়া লেখা’ Category


ইতমধ্যে শুরু হয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইনে আবেদন । অনেক বন্ধুই জানেন কিভাবে আবেদন করতে হয়। আবার অনেকেই আমার মত কম জানা পাবলিক। যারা আমার মত কম কম জানেন তাদের জন্য আজকের এই ব্লগটি। কথা না বাড়িয়ে চলুন কি ভাবে আবেদন করতে হয় জেনে নেই।

প্রথমেই আপনাকে নিচের লিংক এ ক্লিক করতে হবে।

এখানে ক্লিক করুন।

নিচের মত পেইজ আসবে। তীর দিয়ে দেখানো আবেদন এ ক্লক করুন।

তার পর নিচের মত পেইজ আসবে। তথ্য গুলো সঠিক ভাবে দিয়ে —Login এ ক্লিক করুন।

তার পর নিচের মত আরেকটি পেইজ আসবে। ভাল ভাবে নিয়ম গুলো পড়ুন এবং Proceed এ ক্লিক করুন।

তার পর নিচের মত পেইজ আসবে। নিম্নের কিছু বিষয় অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে।

১। ধর্ম সিলেক্ট করতে হবে।

২। যদি কোন কোটা থাকে তাহলে কোটা সিলেক্ট করতে হবে না থাকলে বিশেষ কোটা নাই সিলেক্ট করতে হবে।

৩। বিভাগ সিলেক্ট করতে হবে। খেয়াল রাখবেন বিভাগ সিলেক্ট করে কিছু সময় অপেক্ষা করুন।

৪। কিছু সময় অপেক্ষা করার পর কলেজ অপশন টি আসবে। তখন ঐ বিভাগের কলেজ লিষ্ট আসবে সেখানে আবেদন কারী কোন কলেজে ভর্তি হতে চায় তা সিলেক্ট করুন।

তার পর নিনের মত আরেকটি পেইজ আসবে। এখানে খুবই সতর্কতার সাথে কাজ করতে হবে। আবেদন কারী পছন্দনীয় সাবজেক্ট গুলো বাম পাশের লিষ্ট থেকে ডান পাশে নিতে হবে। যদি তার প্রথম পছন্দ হয় রাষ্ট্রবিজ্ঞান তাহলে বাম পাশের টেবিলে থাকা রাষ্ট্রবিজ্ঞান সিলেক্ট করে মধ্যে থাকা এরোতে ক্লিক করলেই ডান পাশে চলে যাবে। এভাবে বাম পাশের সবগুলো সাবজেক্ট পছন্দ অনুযায়ী ডান পাশে নিতে হবে।

তার পর আবেদন কারী পছন্দনীয় বিষয়গুলো সঠিক ভাবে আসছে কি না তা দেখাবে। যদি সঠিক হয় তাহলে কনফার্ম এন্ড গ তে ক্লিক করুন।

মত একটি কনফার্মেশন ম্যাসেজ পাবেন। নিচে তীর দিয়ে দেখানো ডাউনলোড এডমিট কার্ড অপশনটিতে ক্লিক করুন। এডমিট কার্ড ডাউনলোড করুন।

আপনার কাজ শেষ। ডাউনলোড কৃত এডমিট কার্ডটি প্রিন্ট করে দিন। আবেদন কারী ফটো ও তুলতে ভূলবেন না।

Advertisements

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১২-২০১৩ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে অনলাইনে ভর্তি কার্যক্রম শুরু হচ্ছে শনিবার রাত ১২ টা ১ মিনিটে। বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা আশরাফ আলী  হ্যালো-টুডে ডটকমকে এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ভর্তি অফিসে (প্রশাসনিক ভবনের ২য় তলায় কক্ষ নং-২১৪) এই ভর্তি কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন। ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে এ প্রক্রিয়া ।এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছিল, যেসব শিক্ষার্থী ২০১২ ও ২০১১ সালে উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন, কেবল তারাই ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের আবেদন করতে পারবেন।

অনলাইনে আবেদন প্রক্রিয়া

আনলাইনে ভর্তির আবেদন করতে হলে আবেদনকারীকে প্রথমে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে (www.admission.univdhaka.edu) গিয়ে ইউনিট বাছাই করতে হবে। ওয়েবেসাইটে ‘Apply’ লিংকে ক্লিক করে প্রার্থীকে উচ্চ মাধ্যমিকের রোল নম্বর, শিক্ষাবোর্ড ও পাসের সন উল্লেখ করে ব্যাংকে টাকা জমা দেওয়ার রসিদ ডাউনলোড করে প্রিন্ট করতে হবে।

ওই রসিদের দুটি অংশের নির্দিষ্ট স্থানে সদ্যতোলা দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি সংযুক্ত করে এবং রসিদের দুটি অংশেই স্বাক্ষর (আবেদনকারীর) করে সোনালী, জনতা, অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংকের কোনো একটি শাখায় টাকা জমা দিতে হবে।

আবেদনকারী টাকা জমা দেওয়ার তিন কার্যদিবস পর টাকা জমার রসিদে উল্লেখিত ব্যক্তির পরিচিতি নম্বর (পিন নম্বর) ব্যবহার করে টাকা জমা দেয়ার রসিদে সংযুক্ত ছবির অনুরূপ আরেকটি ছবি ২২ সেপ্টেম্বরের মধ্যে আপলোড করে আবেদন সম্পন্ন করতে হবে। ছবি আপলোডের পর ভর্তি পরীক্ষার প্রবেশপত্র প্রিন্ট করে নিতে হবে।

আগামী ১২ অক্টোবর ‘ক’ ইউনিটের (বিজ্ঞান) পরীক্ষার মাধ্যমে ভর্তি পরীক্ষা শুরু হবে। এরপর ১৯ অক্টোবর ‘খ’ ইউনিটের (মানবিক), ২৩ নভেম্বর ‘গ’ ইউনিটের (ব্যবসায় শিক্ষা), ৯ নভেম্বর ‘ঘ’ ইউনিটের (বিভাগ পরিবর্তন) এবং ১৬ নভেম্বর ‘চ’ ইউনিটের (চারুকলা) ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।


রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার সময়সূচি প্রকাশ আগামী ৬ অক্টোবর থেকে শুরু হবে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ১ম বর্ষ সম্মান শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষা। ইতোমধ্যে ভর্তি পরীক্ষার রুটিন প্রকাশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। জানা গেছে, ৬ অক্টোবর এ-১, এ-২, এ-৩ ওএ-৪ ইউনিটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এরপর ৭ অক্টোবর হবে এ-৫, এ-৬, এ-৭ ও বিইউনিটের, ৮ অক্টোবর সি-১, সি-২, ই এবং এইচ ইউনিটের ও ৯ অক্টোবর ডি, এফ-১, এফ-২ ও জি ইউনিটের পরীক্ষার মধ্য দিয়ে এবারের ভর্তি পরীক্ষা শেষ হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১২-২০১৩ শিক্ষাবর্ষে সম্মান প্রথম বর্ষে ভর্তির আবেদনপত্র গ্রহণ শুরু হবে ১ সেপ্টেম্বর রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে। যা চলবে ১৭ সেপ্টেম্বর রাত পর্যন্ত। মোবাইল অপারেটর টেলিটক থেকে এসএমএস করে এ আবেদন করতে পারবেন যোগ্য ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার দফতরসূত্রে জানা গেছে, ২০০৭, ২০০৮, ২০০৯ ও২০১০ সালে এসএসসি বা সমমান এবং ২০১১ও ২০১২ সালে এইচএসসি বা সমমান, আলিম,ডিপ্লোমা-ইন-কমার্স, বিএফএ (প্রাক), ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং (কম্পিউটার টেকনোলজি), ডিপ্লোমা ইন এগ্রিকালচার, বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের অধীনে এসএসসি (ভোকেশনাল) ও এইচএসসি (ভোকেশনাল), ও লেভেল এবং এ লেভেল পরীক্ষায় উত্তীর্ণরা এবার ভর্তির জন্য আবেদনকরতে পারবেন। মানবিক শাখা থেকে উত্তীর্ণদের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় চতুর্থ বিষয়সহ ন্যূনতম জিপিএ-৭ থাকতে হবে। বিজ্ঞান শাখা থেকে উত্তীর্ণ আবেদনকারীদের উভয় পরীক্ষা মিলে থাকতে হবে জিপিএ-৮.৫০। বাণিজ্য শাখাথেকে উত্তীর্ণ আবেদনকারীদের থাকতে হবে জিপিএ-৮। আবেদন করার নিয়ম : টেলিটক প্রিপেইড মোবাইল ফোনের মেসেজ অপশনে গিয়ে RU লিখে স্পেস দিয়ে এইচএসসি শিক্ষাবোর্ডের ইংরেজি নামের প্রথম ৩ অক্ষর লিখে স্পেস দিয়ে এইচএসসি পরীক্ষার রোল নম্বর লিখে স্পেস এইচএসসি পাসের সাল লিখে স্পেস এসএসসি শিক্ষাবোর্ডের প্রথম ৩ অক্ষর লিখে স্পেস এসএসসি পরীক্ষার রোল নম্বর লিখে স্পেস এসএসসি পাসেরসাল লিখে স্পেস এরপর কাঙ্ক্ষিত ইউনিটের কোডটি লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে। এসএমএসটি পাঠানোর পর সব তথ্য সঠিক হলে ফিরতি এসএমএসে আবেদনকারীর নাম, ফি ও একটি পিন নম্বর জানিয়ে সম্মতি চাওয়া হবে। তখন ১৬২২২ নম্বরে আরেকটি এসএমএস পাঠিয়ে সম্মতি জানাতে হবে। এজন্য প্রথমে RU স্পেস YES স্পেস টেলিটক প্রদত্ত পিন লিখে স্পেস আবেদনকারীর যোগাযোগের জন্য নিজের ব্যবহৃত যেকোনো অপারেটরের একটি মোবাইল নম্বর লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে। আবেদনের ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের৩জন শিক্ষক সার্বিক সহায়তা দেবেন। তাদের মোবাইল নম্বর হলো ০১৫৫৫৫৫৫০১৭, ০১৫৫৫৫৫৫০১৮ ও ০১৫৫৫৫৫৫০১৯।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফি: এবারের ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার জন্য বিভিন্ন ইউনিটের পরীক্ষা ফি নির্ধারণ করা হয়েছে। এসএমএসের মাধ্যমে ১০ শতাংশ সার্ভিস চার্জসহ এ ফি কেটে নেওয়া হবে। কলা অনুষদের এ-১, এ-২, এ-৫, এ-৬ ও এ-৭ ইউনিটের জন্য ২শ ২০ টাকা , এ-৩ ইউনিটের জন্য ৩শ ৩০ টাকা এবং এ-৪ ইউনিটের জন্য ২শ ৭৫ টাকা ফি নেওয়া হবে। আইন অনুষদের বি ইউনিটের জন্য ২শ ২০ টাকা ফি নেওয়া হবে। বিজ্ঞান অনুষদের সি-১ ইউনিটের জন্য ৩শ ৩০ টাকা এবং সি-২ ইউনিটের জন্য ৪শ ৪০ টাকা ফি নেওয়া হবে। বিজনেস স্টাডিজের ডি ইউনিটের জন্য ৩শ ৮৫ টাকা এবং সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ই ইউনিটের জন্য ৬শ ৬০ টাকা ফি নির্ধারণ করা হয়েছে। জীব ওভূ-বিজ্ঞান অনুষদের এফ-১ ইউনিটের জন্য ২শ ৭৫ টাকা ও এফ-২ ইউনিটের জন্য৩শ ৩০ টাকা দিতে হবে। কৃষি অনুষদের জি ইউনিট এবং প্রকৌশল অনুষদের এইচ ইউনিটের জন্য ৪শ ৪০ টাকা করে ফি গুণতে হবে আবেদনকারীদের।

আলহামদুলিল্লাহ্ !শুনে খুশি হবেন যে আজ সকালে আমাদের প্রধানমন্ত্রী আল ক্বুরআনের www.quran.gov.bd ওয়েবসাইটটি উদ্বোধন করেছেন । ভালোই ওয়েবসাইটটা। তাঁর এই সুন্দর ও চমৎকার পদক্ষেপকে স্বাগত জানাই। এটি আমাদের দেশের প্রথম ডিজিটাল কোরআন শরিফ যা রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত এক বিশাল অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এ ডিজিটাল কোরআন শরীফের ওয়েবসাইটটি উদ্বোধন করেন।

এ সময় তিনি বলেন, “সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দেশের মানুষের কল্যাণে দেশের মানুষের আহার, বাসস্থান, শিক্ষা, চিকিৎসা এ কাজগুলো যেনো করতে পারি সে দিকে নজর রেখেই অন্তত আন্তরিকতার সঙ্গে মানুষের মৌলিক চাহিদা আমি পূরণ করার চেষ্টা করে যাচ্ছি।”

প্রধানমন্ত্রী এ সময় দেশের উন্নয়ন কর্মসূচিসহ সব ধর্মের মানুষের জন্য সরকারের বিভিন্ন উদ্যোগ তুলে ধরেন। অসাম্প্রদায়িক হিসেবে জাতির ভাবমূর্তি অক্ষুণ্ন রেখে জাতীয় উন্নয়নে সব ধর্মের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ রাখতে ধর্মীয় নেতাদের প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

ই-বুক হিসেবে ইন্টারনেটে বা ডাউনলোড করেও এখন যেকোনো স্থান থেকেই পবিত্র কোরআন পড়া যাবে। শোনা যাবে তেলাওয়াত। এতে আরবি তেলাওয়াতের সঙ্গে বাংলায় তরজমাসহ বিভিন্ন ফিচারও রয়েছে।

মাহে রমজান বিষয়ক একটি পেজ । মাহে রমজান সম্পকে আরও জানতে পেজটি থেকে ঘুরে আসুন  দয়া করে
এডিয়ে যাবেননা, পেজটিতে কেউ জয়েন না করে  থাকলে জয়েন করুন  এখুনি । জয়েন করলে ক্ষতি হবে না বরং লাভ হবে । ♥
https://www.facebook.com/m.romjan

সবাই ভালো থাকবেন রমজানে সবার তরে সবাই দো’য়া করবেন যেন সবাই রমজানের সবগুলো রোজা সুস্থ শরীরে রোজার হক্ব আদায় ও তার সাথে  তারাবীর নামাজ পড়ার তৌফিক দান করুন (আমিন)।

আল্লাহ হাফেজ


আজ উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (H.S.C) ও সমমানের পরীক্ষার ফল   একযোগে প্রকাশ করা হবে । ইন্টারনেটে http://www.educationboardresults.gov.bd/ এই সাইটে প্রকাশ করা হবে । আন্তঃ শিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সভাপতি অধ্যাপকফাহিমা খাতুন এ তথ্য জানিয়েছেন।তিনি বলেন, “ওই দিন সকাল ১০টায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনারকাছে পরীক্ষার ফল হস্তান্তর করা হবে। দুপুরে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে সংবাদসম্মেলনে ফলাফলের সার্বিক বিষয় তুলে ধরবেন শিক্ষামন্ত্রী।”
গত ১ এপ্রিল এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়ে তা ২২ মে শেষ হয়। ২৩ মে থেকে ৬ জুন পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয় ব্যবহারিক পরীক্ষা।এবার মোট ৯ লাখ ২৬ হাজার ৮১৪ শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেয়, যার মধ্যে ৪ লাখ ৯৬ হাজার ৩৯৫ জন ছাত্র এবং ৪ লাখ ৩০ হাজার ৪১৯ জন ছাত্রী।রেজাল্ট সংগ্রহ :http://www.educationboardresults.gov.bd/ সাইটেরেজাল্ট প্রকাশ করা  হবে ।

মোবাইল ও ইন্টারনেটে  ২০১২ সালের এইচ.এস.সি/সমমান পরীক্ষার ফলাফল

মোবাইল এর মাধ্যমে যেভাবে রেজাল্ট নিবেনঃ হ্যান্ডসেটের মেসেজ অপশনে গিয়ে প্রথমে HSC টাইপ করে একটি স্পেস দিয়ে বোর্ডের প্রথম ৩ অক্ষর লিখুন (যেমন- ঢাকা হলে DHA)। এবার রোল নম্বর লিখে আরেকটি স্পেস দিয়ে বছরটি (২০১২) লিখুন। তারপর পাঠিয়ে দিন 16222 নম্বরে। ফিরতি মেসেজে পেয়ে যাবেন রেজাল্ট! প্রতি এসএমএস চার্জ মাত্র ২টাকা + ১৫% ভ্যাট ।


1. মোবাইল সফ্টওয়্যার এর মাধ্যমেঃ SSC ও দাখিল পরীক্ষার রেজাল্ট ছোট্র একটি সফ্টওয়্যার এর মাধ্যমে সহজেই জানতে পারবেন। ডাউনলোড করে রোল নাম্বার দিন আর বোর্ড সিলেক্ট করুন তাহলে রেজাল্ট পেয়ে যাবেন। সফ্টওয়্যারটি ডাউনলোড করুন এই লিংক গুলো থেকে- …*টাইপ> http://bit.ly/J7c3Td । *টাচ> http://bit.ly/INOG3w
2. ওয়েবসাইট এর মাধ্যমেঃ www.educationboardresults.gov.bd
www.educationboardresults.gov.bd
www.dhakaeducationboard.gov.bd →এ লিংকে গিয়ে ও রেজাল্ট দেখতে পারবেন। আজ সারাদিন এই সার্ভার এর উপর বিরাট ধকল যাবে তাই মোবাইল দিয়ে এই লিংক-এ গিয়ে রেজাল্ট দেখার আশা ছেড়ে দিন। তবে যারা UC ব্রাউজার ব্যবহার করেন তারা বারবার লিংকটিতে গিয়ে * বাটন প্রেস করে পেজ রিলোড করতে থাকুন আশা করি যেকোনো একসময় রেজাল্ট পেয়ে যাবেন।
3. SMS এর মাধ্যমেঃ Message অপশনে এ গিয়ে সাধারন বোর্ডের জন্য SSC ও মাদ্রাসা বোর্ডের জন্য Dakhil লিখে একটি Space দিয়ে বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর লিখুন এবং আরেকটি Space দিয়ে রোল নাম্বার এবং আরেকটি Space দিয়ে যে বছরের পরীক্ষার্থী তার সন টাইপ করুন এবং 16222 নাম্বারে SMS করুন→ উদাহরন-SSC Dha 123456 2012 Send to 16222।

সকল পরিক্ষার্থীদের জন্য  TECHSPACEBD  এর পক্ষ থেকে শুভ কামনা রইল। বিঃ দ্রঃ অনেক শিক্ষার্থী ভাইয়ের এ তথ্যগুলো অজানা থাকতে পারে তাদের জন্য এই পোস্টটি শেয়ার করুন। …সংগৃহীত
ভাল লাগলে আমাদের TECHSPACEBD  পেজটা একটু ঢু মেরে লাইক দিয়ে যান। আসা করি আপনাদের কাজে লাগবে।


প্রযুক্তির এই সময়ে সকলেই ঝুঁকে পড়ছেন প্রযুক্তিনির্ভর কাজের দিকে। বিশেষ করে আউটসোর্সিংয়ে বাংলাদেশের অবস্থান শক্তিশালী হয়ে ওঠায় কম্পিউটার বা তথ্যপ্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট বিষয়ে কাজের দক্ষতা তৈরি করে অনেকেই আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে অর্থ আয়ের দিকে ঝুঁকে পড়ছেন। আউটসোর্সিংয়ের ক্ষেত্রে প্রচুর চাহিদা রয়েছে কম্পিডউটার প্রোগ্রামিংয়ের। কম্পিউটার বিজ্ঞান বা সংশ্লিষ্ট বিষয়ে পড়ালেখা না করেও প্রোগ্রামিং শিখতে চাইলে দ্বারস্থ হতে পারেন অনলাইনের। অনলাইনে বিনামূল্যে প্রোগ্রামিং শেখার কার্যকরী ৪টি সাইটের কথা জানাচ্ছেন techspacebd.tk

কম্পিউটার প্রোগ্রামিংয়ে আগ্রহী মানুষের সংখ্যা কম নয়। তথ্যপ্রযুক্তির প্রসারের সাথে সাথে বেড়ে চলেছে কম্পিউটারের ব্যবহার। পাশাপাশি কম্পিউটার নির্ভর কাজে দক্ষ মানুষের চাহিদাও বেড়েই চলেছে। প্রাতিষ্ঠানিকভাবে তাই প্রোগ্রামিং শেখার জন্য বিভিন্ন পর্যায়ে রয়েছে নানান ধরনের প্রতিষ্ঠান, রয়েছে নানান ধরনের কোর্স। তবে শেখার আগ্রহ এবং ধৈর্য থাকলে নিজে নিজেও কোডিং শেখার কাজটি করা যায়। তার জন্য রয়েছে নানান ধরনের বইপত্র। তবে বইপত্র পড়ে নিজে নিজে শেখাটা কষ্টের বটে। এ সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে ইন্টারনেট এবং টেক জায়ান্টরা।

বর্তমানে অনলাইনে শিক্ষা বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে সব দেশেই। একটি কম্পিউটার আর ইন্টারনেট সংযোগ থাকলেই পুরো বিশ্ব এখন হাতের মুঠোয়। আর অনলাইনে বিনামূল্যে যারা পড়ালেখা করতে চায়, তাদের দিকে হাত বাড়িয়ে দিয়েছে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো। প্রোগ্রামিং শেখার জন্যও তেমনি রয়েছে নানান ধরনের অনলাইন কোর্স। ঘরে বসেই প্রাতিষ্ঠানিক গাইডলাইন অনুযায়ী পরিপূর্ণ একটি কোর্সের মাধ্যমে এইসব প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট থেকে শেখা যায় প্রোগ্রামিং। আর তাতে করে যারা আউটসোর্সিংয়ের কাজ করতে চান, তাদের জন্য এটি হতে পারে আদর্শ একটি প্লাটফর্ম। এই লেখায় অনলাইন সাইটগুলোর মধ্য থেকে ৪টি ওয়েবসাইটের কথা জানানো হবে, যাদের বলা যায় কোডিং শেখার জন্য সবচেয়ে সমৃদ্ধ এবং আদর্শ প্লাটফর্ম।

এমআইটি ওপেন কোর্সওয়্যার

প্রযুক্তি বিষয়ক শিক্ষায় বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠানের নাম ম্যাসাচুসট ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজি বা এমআইটি। বিশ্বব্যাপী বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর র্যাংকিংয়ে বরাবরই শীর্ষস্থানে থাকা এই বিশ্ববিদ্যালয়ে রয়েছে সকলের জন্য উন্মুক্ত ওপেন কোর্সওয়্যার। ২০০১ সালে তারা চালু করে এই সেবা।

কম্পিউটার প্রোগ্রামিং ও কোডিং বিষয়ক কোর্সগুলো পরিচালিত হয় এমআইটি’র ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগ থেকে। এখানকার গ্র্যাজুয়েট এবং আন্ডারগ্রাজুয়েট কোর্সের আওতায় কোডিং ও প্রোগ্রামিং বিষয়ক অনেকগুলো কোর্স রয়েছে। এসব কোর্সের মধ্যে রয়েছে ইন্ট্রোডাকশন টু কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড প্রোগ্রাম, কম্পিউটেশন স্ট্রাকচার, ইলেমেন্টেস অব সফটওয়্যার কনস্ট্রাকশন, ইন্ট্রোডাকশন টু অ্যালগরিদম, কম্পিউটার ল্যাঙ্গুয়েজ ইঞ্জিনিয়ারিং, প্র্যাকটিক্যাল প্রোগ্রামিং ইন সি, ইন্ট্রোডাকশন টু প্রোগ্রামিং ইন জাভাসহ অন্যান্য প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ-এর উপর বিভিন্ন কোর্স। এসব কোর্সের উপর রয়েছে লেকচার ভিত্তিক টেক্সট, অডিও-ভিডিও ফাইল, বিভিন্ন প্রজেক্ট, সমস্যা এবং সেগুলোর সমাধান।

বিশ্বের যেকোনো প্রান্তের যেকেউ এই কোর্সগুলো অনলাইনে সম্পন্ন করতে পারবে বিনামূল্যে। এর যেসব কোর্স ম্যাটেরিয়াল রয়েছে সেগুলো বিনামূল্যেই ডাউনলোড করা যাবে। এমআইটি’র ওপেন কোর্স ওয়্যার-এর ঠিকানা : http://ocw.mit.edu/index.htm

ইউসি বার্কলে ওয়েবকাস্ট

বার্কলেতে অবস্থিতি ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে স্বনামধন্য। এই প্রতিষ্ঠানের রয়েছে অনলাইন শিক্ষার সুযোগ। তারা নিয়মিতভাবেই অনেকগুলো কোর্সই পরিচালনা করে আসছে অনলাইনে। অনলাইনে এসব কোর্সের স্টাডি ম্যাটেরিয়াল, লেকচার নোট, লেকচার ভিডিও প্রভৃতি পাওয়া যায়। এসব কোর্সের মধ্যে অন্তর্ভূক্ত রয়েছে প্রোগ্রামিং। এ সংশ্লিষ্ট কোর্সগুলোতে ২০০৩ সাল থেকে এখন পর্যন্ত অনুষ্ঠিত কম্পিউটার বিজ্ঞানের সব ক্লাসের অডিও এবং ভিডিও লেকচারের সংগ্রহ রয়েছে এখানে। আর এসব কনটেন্ট পাওয়া যাবে একদম বিনামূল্যে। লেকচার ওয়েবকাস্টের জন্য এই বিশ্ববিদ্যালয়ের রয়েছে এডুকেশনাল টেকনোলজি সার্ভিস। তারাই ইন্টারনেট দেখার উপযোগী করে অডিও এবং ভিডিওগুলো ধারণ করে। আর ইনফরমেশন সিস্টেম এন্ড টেকনোলজি বিভাগটি ওয়েব আর্কাইভ ব্যবস্থাপনা এবং সম্প্রচারের যাবতীয় টেকনিক্যাল বিষয়গুলো দেখাশোনা করে। এখানে রয়েছে নেটে সম্প্রচারের সুবিধার্থে অডিও-ভিডিও ধারণের জন্য বিশেষভাবে উপযোগী করে তৈরি করা ক্লাসরুম। এখানে প্রতিটি লেকচারের ২ থেকে ৬ ঘণ্টার মধ্যে সেগুলো আপলোড হয়ে যায় ইন্টারনেটে। আর এসব নিজস্ব সাইট ছাড়া আইটিউনস এবং ইউটিউবেও পাওয়া যায় লেকচারগুলো।

প্রোগ্রামিং সংক্রান্ত কোর্সগুলোর মধ্যে এখানে রয়েছে কম্পিউটার সায়েন্স: দ্য বিউটি এন্ড জয় অব কম্পিউটিং, প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ অ্যান্ড কমপাইলাস এবং স্ট্রাকচার এন্ড ইন্টারপ্রিটেশন অব কম্পিউটার প্রোগ্রামস। এসব কোর্সে প্রোগ্রামিংয়ের ইতিহাস থেকে শুরু করে লজিক প্রোগ্রামিং, ডাটাবেজসহ সব ধরনের প্রোগ্রামিং পাওয়া যাবে। এই সাইটের ঠিকানা : http://webcast.berkeley.edu

গুগল কোড ইউনিভার্সিটি

টেক জায়ান্ট গুগল সকলের জন্য উন্মুক্ত অনলাইন শিক্ষায় চালু করেছে গুগল কোড ইউনিভার্সিটি। এই প্লাটফর্মে রয়েছে সব ধরনের প্রোগ্রামিং এবং অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট বিষয়ক কোর্স। কোর্সের মূল শ্রেণীগুলোর মধ্যে রয়েছে প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ, ওয়েব প্রোগ্রামিং, ওয়েব সিকিউরিটি, অ্যালগরিদম, অ্যানড্রয়েড, ডিস্ট্রিবিউটেড সিস্টেম, টুলস ২০০১ এবং গুগল এপিআই অ্যান্ড টুলস। সি++ থেকে শুরু করে রয়েছে জাভা, পাইথন, সিএসএস, এইচটিএমএল, জাভা স্ক্রিপ্ট, অ্যাজাক্স, এইচটিএমএল৫সহ সব ধরনের প্রোগ্রামিং এবং ওয়েব প্রোগ্রাম রয়েছে এর মধ্যে। এছাড়া সিকিউরিটি অ্যানড্রয়েড-এর মধ্যেও রয়েছে প্রয়োজনীয় সব প্রোগ্রামিং। আর টুলস ১০১-এর মধ্যে রয়েছে ডাটাবেজ, সফটওয়্যার কনফিগারেশন ম্যানেজমেন্ট এবং লিনাক্সের নানান কোর্স।

গুগল কোড ইউনিভার্সিটির বিভিন্ন কোর্সের সব ধরনের কোর্স ম্যাটেরিয়াল সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ব্যবহার করতে পারবে যেকেউ। এখানে সম্পূর্ণ নতুন শিক্ষার্থীদের জন্য তো বটেও, এই বিষয়ে অভিজ্ঞদের জন্যও রয়েছে নানান কোর্স। কোর্স ম্যাটেরিয়ালের মধ্যে অডিও-ভিডিও এবং লেকচারও রয়েছে। এখানকার সব ধরনের ডক্যুমেন্ট যে কেউ বিনামূল্যে ডাউনলোড করতে পারবেন। আর কোডিং বিষয়ে বিশেষজ্ঞরা চাইলে এখানে নতুন কোর্সও যোগ করতে পারবেন। গুগল কোড ইউনিভার্সিটির ওয়েব ঠিকানা : http://code.google.com

স্কুল অফ ওয়েবক্রাফট

ওপেন সোর্স সফটওয়্যার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান মজিলা ফাউন্ডেশন এবং পি২পিইউ যৌথভাবে তৈরি করেছে এই ওয়েবসাইট। ওয়েব ডেভেলপমেন্টের জন্য নানান কাজের দক্ষতা তৈরিতে অনলাইনে বিনামূল্যে বিভিন্ন কোর্স পরিচালনা করে আসছে এটি। বিশ্বব্যাপী সকলেই যেন খুব সহজে এবং বিনামূল্যে ওপেন সোর্সভিত্তিক বিভিন্ন কাজে দক্ষতা অর্জন করতে পারে, সেই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখেই তৈরি করা হয়েছে এই ওয়েবসাইট।

এখানে রয়েছে এইচটিএমএল, সিএসএম, জাভা স্ক্রিপ্ট এর মতো প্রাথমিক ধাপের ল্যাঙ্গুয়েজ থেকে শুরু করে পিএইচপি, পাইথন/ডিজাংগো, রুবি অন রেইলস-এর মত প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ শেখার সুযোগ। প্রোগ্রামিংয়ে দক্ষ বিভিন্ন স্তরের মানুষদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় গড়ে উঠেছে এখানকার সংগ্রহশালা। আর এসব বিষয়ে দক্ষ যে কেউ এখানে নতুন কোর্স যোগও করতে পারবেন।

এইখানে বিভিন্ন কোর্সের মাধ্যমে প্রোগ্রামিং শেখার পর সফলভাবে কোর্স সম্পন্নকারীদের জন্য ‘ওপেন ব্যাজেস’ নামক বিশেষ অনলাইন সনদ প্রদান করা হবে যার গ্রহণযোগ্যতা থাকবে সর্বত্র। এই সাইটের ঠিকানা : http://www.p2pu.org/en/webcraf

 [ ভাল লাগলে পোস্ট এ  অবশ্যই লাইক দিবেন , লাইক দিলে আমাদের কোনো লাভ অথবা আমরা কোনো টাকা পয়সা পাই না, কিন্তু উৎসাহ পাই, তাই অবশ্যই লাইক দিবেন । ]


আচ্ছালামু আলাইকুম।আশা করি ভাল আছেন সবাই ?  বন্ধুরা যারা এই লেখাটা দেখছেন আমি তাদের অনুরোধ করবো তারা যেন অন্তত একটি বার হলেও পুরো post টা দেখেন।

                                                                Tense Tension

Tense…..। খুব কঠিন , তাইনা…… । নাহ…আসলে আমরা tense-কে কঠিন বানিয়েছি। Tense কিন্তু মোটেই কঠিন কিছু না । নিচের আলোচনা থেকে নিজেই বিচার করো ,কঠিন ,না সহজ ।প্রথমে বুঝতে হবে tense কী ?

নিচের বাক্যগুলো লক্ষ্য করো :
1. আমি বসবো (ভবিষ্যতে বসবো) ।
2. আমি বসছি (বর্তমানে বসছি) ।
3 .আমি বসেছিলাম (অতিতে বসেছিলাম) ।
এই তিনটি বাক্যে বসার কাজটা তিনটি কালে ঘটেছে ।
প্রথম বাক্যের বসাটা ভবিষ্যতে ঘটবে ।
দ্বিতীয় বাক্যে বসার কাজটা বর্তমানে ঘটছে ।
তৃতীয় বাক্যে বসার কাজটা অতিতে ঘটেছিল ।
এখন বলোতো কোন শব্দটা এই তিনটি বাক্যের কালের পরিবর্তন ঘটিয়েছে ?
– “বসা” শব্দটা তাইনা !
– আচ্ছা ! “বসা” শব্দটা কী?
– “বসা” শব্দটা একটা ক্রিয়া (যে শব্দ দ্বারা বসা,খাওয়া,যাওয়া ইত্যাদি কাজ করা বুঝায় তাই হচ্ছে ক্রিয়া বা verb)
– আচ্ছা !”বসা” শব্দটার তিন বাক্যে তিনটা রূপ
অর্থাৎ
• ব স + ব
• ব স + ছি
• ব স + ছিলাম
প্রথম বাক্যে: “বসা” শব্দের সাথে “ব”-টা এসেই “বসা “এই কাজটাকে ভবিস্যতে নিয়ে গেছে । ( অর্থাৎ “ভবিস্যতে বসবো” এটা বুঝাচ্ছে)।
দ্বিতীয় বাক্যে: “বসা” শব্দের সাথে “ছ”-টা এসেই “বসা” কাজটাকে বর্তামানে নিয়ে গেছে ।
তৃতীয় বাক্যে: “বসা” শব্দের সাথে “ছিলাম” এসেয়েই “বসাকে” অতিতে নিয়ে গেছে । যে শব্দটি এখানে তিনটি বাক্যকে তিনটি কালে নিয়ে যাচ্ছে , তা হচ্ছে ঐ বক্যে অবস্থিত ক্রিয়া বা verb। আবার ঐ বাক্যকে বিভিন্ন কালে নিয়ে যাওয়ার জন্যে ক্রিয়াটিকে যে জিনিসটা সাহায্য করছে তা হল “কিছু কিছু অক্ষর” ।

তাই তো :

প্রথম উদাহরনে “বসা” শব্দের সাথে “ব”

এবং দ্বিতীয় বাক্যে “বসা” শব্দের সাথে “ছ”

এবং তৃতীয় বাক্যে “বসা” শব্দের সাথে “ছিলাম” এই অক্ষরগুলো যুক্ত হয়েছে । এখন আমরা যদি ক্রিয়া থেকে অতিরিক্ত অক্ষরগুলো আলাদা করার নিয়ম জেনে নেই তাহলে আমাদের কোন বাক্য কোন কালে পড়েছে , তা বের করা সহজ হবে ।

নিয়ম গুলো লক্ষ করো :

•কোনো ক্রিয়ার মূল যে কয়টা অক্ষর আছে তা ব্যতিত সব অক্ষরই ,অতিরিক্ত অক্ষর (যেমন : “বসিতেছিলো” এখানে “বসা” হলো মূল শব্দ, “বসা” থেকে “বসিতেছিলো” এসেছে )।এই অতিরিক্ত অক্ষগুলোই মূলত বক্যের ক্রিয়াকে বিভিন্ন কালে নিয়ে যায়। (আর এই ক্রিয়াকে বিভিন্ন কালে নেয়াকেই তো tense বলে । অন্য কথায় “কোনো কাজ ঘটার সময় বা কালকে tense বলে । তাহলে বলতে পারি যে tense পরিবর্তনের জন্য কিছু কিছু অক্ষরই প্রধান ভুমিকা রাখে ।)

নিচের বাক্যগুলো লক্ষ করঃ (অতিরিক্ত অক্ষরগুলোকে আমরা প্রতিক বলব)(মূল শব্দটা হল “বসা” এবং মূল অক্ষরগুলো হলো “ব” এবং “স” ।

১. বর্তমান
আমি বসি ——————× (cross)(অতিরিক্ত অক্ষর নেই)
আমি বসিতেছি –––––––– ত + ছ
আমি বসিয়াছি ———য় + ছ

২. অতিত
আমি বসিলাম——— ল (“ম” টা এখানে “আমি” থাকার কারনে এসেছে)
*1 আমি বসিতে ছিলাম— ত + ল (“ম” টা এখানে “আমি” থাকার কারনে এসেছে)
*1 আমি বসিয়া ছিলাম———— য় + ল (“ম” টা এখানে “আমি”থাকার কারনে এসেছে)

(*1চিহ্নিত )উভয় বাক্যে অতিরিক্ত অক্ষরগুলো যথাক্রমে ত,ছ,ল,ম এবং য়,ছ,ল,ম । “ম”বাদ যাবে যেহেতু তা আমি থাকার কারনে এসেছে । প্রতিক হিসাবে আমরা ঐ অক্ষরগুলো নিব যা অতিরিক্ত অক্ষরগুলোর প্রথম ও শেষে থাকবে । তাহলে আমরা ত,ছ,ল থেকে ত ও ল এবং এবং য়,ছ,ল থেকে য় ও ল নিলাম।

৩. ভবিস্যত
আমি বসবো—————– ব
*২ আমি বসিতে থাকব——— ত + ব
*২ আমি বসিয়া থাকব——— য় + ব

(*২চিহ্নিত)=উভয় বাক্যে অতিরিক্ত অক্ষর ত,থ,ক,ব এবং য়,থ,ক,ব প্রতিক হিসাবে আমরা ঐ অক্ষরগুলো নিবো যা অতিরিক্ত অক্ষরগুলোর প্রথম ও শেষে থাকে । ( আগের নিয়মেই ) । মাঝে কি আছে না আছে , দেখার প্রয়োজন নেই । থাহলে আমরা মোট প্রতিক পেলাম ( x + ত + ছ + য় + ছ ) এবং ( ল + ত + ল + য় + ল ) এবং ( ব + ত + ব + য় + ব ) এখন আমরা গানিতিক নিয়মে বুঝার চেস্টা করব : { যারা উৎপাদকে দুবর্ল তারা ঝটপট অনুশীলনী ৩.৩ , ৩.৪ , ৩.৫ (নবম ও দশম শ্রেনীর জন্য) দেখে নাও }

=(প্রথম অংশের অতিরিক্ত অক্ষর ) (দ্বিতীয় অংশের অতিরিক্ত অক্ষর ) (তৃতীয় অংশের অতিরিক্ত অক্ষর)

={X (CROSS)অঙ্কর সুবিধার্তে বাদ দেয়া হল}

=(ত.ছ + য়.ছ) x (ল + ত.ল + য়.ল ) x (ব + ত.ব +য়.ব)
={ ছ ( ত + য় )} x {ল (ত + য় )} x {ব (ত + য় )}
= ( ত + য় ) (ছ x ল x ব)
= ত x য় x ছ x ল x ব
(মাত্র ৫টি প্রতীক বা Symbol)
দেখলে !
Tense-ও কি সুন্দর গানিতিক নিয়ম মেনে চলে ! পনেরোটা প্রতীক থেকে এখন মাত্র পাঁচটা । (CROSS) × সহ মোট ছয়টা ।
অবশ্যই মুখস্ত করতে হবে যে :

× (cross) এবং “ছ” হলে বুঝাতে হবে যে বাক্যটা present tense-এর ।
“ল” হলে বুঝাতে হবে যে বাক্যটা past tense-এর ।
“ব” হলে বুঝাতে হবে যে বাক্যটা future tense-এর ।
“ত” হলে বুঝাতে হবে যে বাক্যটা continuous tense-এর ।
“য়” হলে বুঝাতে হবে যে বাক্যটা perfect tense-এর।
তাহলে :

সে বসে ———— x present
সে বসিতেছে——— ত + ছ
ত = continuous
ছ = present
অতএব বাক্যটা present continuous-এর বাক্য ।
সে বসিয়াছে———— য়+ছ
য় = perfect
ছ = present
অতএব বাক্যটা present perfect-এর বাক্য ।

সে বসিল —— ল
ল = past
সে বসিতেছিল –ত + ল
ত = continuous
ল = past
অতএব বাক্যটা past continuous-এর বাক্য ।
সে বসিয়াছিল— য় + ল
য় = perfect
ল = past
অতএব বাক্যটা past perfect-এর বাক্য ।

সে বসিবে—————ব
ব = future
সে বসিতে থাকিবে —— ত + ব
ত = continuous
ব =future
অতএব বাক্যটা future continuous-এর বাক্য ।
সে বসিয়া থাকবে–––– য় + ব
য় = perfect
ব = future
অতএব বাক্যটা future perfect-এর বাক্য ।

এখানে একটা জিনিস লক্ষো করেছো !

• বাক্য সবগুলো কিন্তু সাধু ভাষার ।কারন সাধু ভাষার বাক্যগুলো ব্যকরনের সব নিয়ম মেনে চলে । কথ্য ভাষার বাক্যগুলো ব্যকরনের সব নিয়ম মেনে চলে না ।
• যাদের tense সম্পর্কে হালকা ধারনা আছে ,তারা লক্ষ করেছ যে tense মূলত বারো প্রকার কিন্তু এখানে আলোচনা হয়েছে মাত্র নয় প্রকারের । কারন বাকি তিন প্রকার tense, এইগুলো বুঝলে সহজ ।তাই প্রথমে এগুলো বুঝে,পরে ঐগুলো বিঝবো।

অনুশীলনীঃ

তাহলে এখন বলোতো নিচের কোনটা কোন tense-এর এবং কোনটায় কোন symbol আছে ?

  তুমি বসিতে থাকিবে _future continuous

  তুমি স্কুলে যাইবে ___________________

  সে স্কুলে গিয়াছিল —————————–

  আমি স্কুলে গিয়াছি —————————

  সে বসে –––––––––––––––––––––––––

  তুমি লেখ ––––––––––––––––––––––––

  তারা লিখিতেছিল –––––––––––––––––––

  আমি লিখিতেছি ––––––––––––––––––––

  তোমরা লিখিতে থাকিবে ––––––––––––––

  সে লিখিবে –––––––––––––––––––––––

এখন নিচের প্রতিকগুলো দিয়ে বাক্য বানাও

  ব = সে যাবে /খাবে /বসবে ইত্যাদি

  ত + ব = ––––––––––––––––

  ল = –––––––––––––––––––

  ত + ল = –––––––––––––––––

  ত + ছ = –––––––––––––––––

  য় + ছ= –––––––––––––––––

  × = ––––––––––––––––––––

  য় + ল = –––––––––––––––––

  × = ––––––––––––––––––––

তোমরা নিজে নিজে আরো বেশী অনুশীলন করবে ।
সতর্কতা :

– “ সে যায় ” এই বাক্যে অতিরিক্ত অক্ষর কোনটা ?

– (পাঠকের উত্তর) এখানে অতিরিক্ত অক্ষর “য়” যা perfect বুঝাচ্ছে ।

– নাহ , হলো না ।এখান আসলে কোনো অতিরিক্ত অক্ষর নেই।
যে “য়” তুমি এখানে দেখতে পাচ্ছো তা আসলে “ যাওয়া ” এই verb-এর মূল শব্দের মূল অক্ষর । “ যাওয়া ” দিয়ে perfect বুঝানোর জন্য “যাইয়াছে” , “যাইয়াছিল” , “যাইয়া থেকিবে” হবে । “যাওয়া” , “খাওয়া” , “শোওয়া” ইত্যাদি মূল ক্রিয়া থেকে যে “ যায় ”, “ খায় ”, “ শোয় ” ক্রিয়া বা verb বের হয় তার “ য় ”-টা মূল verb-এর মূল অক্ষর । perfect-এর “য়” নয় । কারন তুমি তো “যায়”-কে “ যাওয়ায়ে ” বা “ খাওয়া ” কে “ খাওয়ায়ে ” অথবা “ যাওয়া + য়াছে ” বা “যাওয়া + য়াছিল” ইত্যাদি বলতে পারবেনা । আসলে মূল কথা হলো বাংলায় কনো মূল ক্রিয়ার শেষে “ওয়া” থাকলে আমরা সাধারনত এভাবেই ব্যবহার করে থাকি । এটার কোনো কারন বা নিওম আমার কাছে নাই । যেমন : খাওয়া থেকে খায় , খাই , খাইয়াছি । যাওয়া থেকে যায় , যাই , যাইয়াছি ইত্যাদি হবে । খায় , যায় , শোয় এর “য়” দেখে perfect-এর “য়” মনে করবে না । ( অধিক অনিশীলনের মাধ্যমে এগুলো ঠিক হয়ে যাবে )
-আচ্ছা ! বলোতো “ আমি ভাত খাচ্ছি ” এটা কোন tense ?
-(পাঠকের উত্তর) এটা present tense ।
-হ্যাঁ , তুমি “ছ” দেখেই present বলে ফেলেছো , তাই না ! আসলে বিষয়টা এমন না , আমরা যত উদাহরন দিয়েছি তা আসলে সাধু রীতিতে ছিল কিন্তু এই বাক্যটা কথ্য রীতিতে বলা হয়েছে । এই বাক্যটা সাধু ভাষায় নিলে কি হবে ?
– (পাঠকের উত্তর ) “আমি ভাত খাইতেছি” ।
– তাহলে এখন বলোতো এটা কোন tense ?
– (পাঠকের উত্তর ) present continous tense ।
-আসলে কি জানো,আমাদের এই প্রতিকগুলো নিখুঁত ভাবে সাধু রীতিতে পাওয়া যায় । তাই tense চেনার জন্য কথ্য রীতির বাক্যকে সাধু রীতিতে আনতে হবে ।
                                                               নিচে কয়েকটি দেখানো হলঃ
o বসেছি থেকে বসিয়াছি
o বসছি থেকে বসিতেছি
o বসছিল থেকে বসিতেছিল
o বসেছিল থেকে বসিয়াছিল
o বসে থাকবে থেকে বসিয়া থাকবে
(অন্য tense-এর ক্রিয়াগুলোর মধ্যে অবশ্য সাধু-চলতি উভয় রীতিতে আমাদের প্রতিকগুলো নিখুঁত ভাবে পাওয়া জায় । তাই ঐগুলো দেখানো হলো না ।
 “ সে ঘুরতে যাবে ” এই বাক্যে “ত” এবং “ব” আছে । তাই বলে এটা future continuous tense-এর বাক্য না । এখানে “ঘুরতে”-এর “ত”-টা “জন্য” অর্থে , continuous-এর “ত” না ।এটা symbol-এর অংশ না ।“ব”-টা অবশ্য symbol-এর অংশ ।“ব”-এর জন্য “will” হবে ।এই বাক্যের ইংলিশ হবে “ He will go for wandering (wonder এর অর্থ আশ্চর্য আর wander এর অর্থ ঘুরা ঘুরি করা)”

English to Bangla :

এতক্ষণ আমরা বাংলায় কোন্ বাক্য কোন্ tense-এ পড়ে তা বুঝলাম , এখন আমরা বুঝবো , english বাক্য দেখে কিভাবে tense চেনা যায় ।

মূল আলোচনায় যাওয়ার আগে আমরা কয়েকটি বিষয় জেনে নেই :

 যে কোনো verb-এর কয়েকটা রূপ থাকে ।
এগুলো হল :
o Present রূপ
o Past রূপ
o Past participle (P.P) রূপ
o –ing যুক্ত রূপ
o Base form (মুল রূপ )
Base form                    Present form                      Past form                    P.P form                   -ing form Be                                  Am/is/are                           Was/were                   Been                           Being Have                             Have/has                             Had                             Had                            Having    Do                                 Do                                          Did                              Done                           Doing      Go                                 Go                                          Went                           Gone                            Going    একটু লক্ষো করলে দেখতে পাবে যে শুধুমাত্র “be” এবং “have” এই দুই verb-এর base form-এর সাথে present form-এর মিল নেই বাকি অন্যান্য verb-এর মিল রয়েছে । তাই অনেকেই present form-কে base form বলেন । আমরা আমাদের সুবিধার্তে base form এবং present form আলাদা আলাদা করে উল্লেখ করব ।

কয়েকটি নিয়ম লক্ষো করো :

  •  “ To be verb ” বলতে am , is , are , was , were , been সবটাকে বুঝানো হয় ।
  •  “ to have verb” বলতে have , has , had সবটাকে বুঝানো হয় ।
    Have এই base form-এর present form হলো have এবং has । এখন প্রশ্ন হলো “ কখন কোনটা ব্যবহার হবে ? ” এর উত্তর হলো সব ক্ষেত্রে have এবং he , she , it বা যে কোন নামের ক্ষেত্রে has ব্যবহার হবে ।
    যেমনঃ
    He / Rayhan has written
    She / Bushra has written
    It / The bird has flown (ইত্যাদি)
  • He , she , it বা যে কোন নামের পর যদি verb-এর present form হয় তবে ঐ verb-এর শেষে “s” বা “es’ যুক্ত হবে । সব verb-এর শেষে “s” যুক্ত হয় কিন্তু যদি verb-টির শেষে s, ss, sh, ch, x, o থাকে তাহলে “es” যুক্ত হবে । আরেকটা ব্যতিক্রধর্মী নিয়ম আছে । তা এখন না হয় বাদিই দিয়া দিলাম । নাহ্ , বলছি যখন বলেই ফেলি ।
    Verb-এর শেষে যদি “y” থাকে এবং এই “y”-এর আগে consonant letter (a,e,i,o,u ছাড়া সব হলো consonant letter । a , e , i , o , u হলো vowel ) থাকে তবে ‘y’ উঠে গিয়ে ‘ies’ যুক্ত হবে ।
    যেমনঃ
    He / Shimul cry cries
    She / Salwa fry fries
    কিন্তু “y”-এর আগে vowel থাকলে সাবাভাবিক নিয়মেই ‘s’ যুক্ত হবে ।
    যেমনঃ
    He / Hakim plays
    She / Salwa says
  • Be এই base form-এর present form তিনটা এবং past form দুইটা । এখন প্রশ্ন হলো কোনটা কখন কথায় ব্যেবহার হবে ? তাই না !
    present form-এর ক্ষেত্রে আমরা সবসময় “are” ব্যবহার করব ।
    শুধু “I”-এর ক্ষেত্রে “am”
    এবং he / she / it বা কোনো নামের ক্ষেত্রে “is” ব্যবহার করব ।
    যেমনঃ
    I am going
    He / she / it / faizul / zuhra is going
    We / you / they are going
    এই তো গেলো present form-এর তিনটার কথা ।
    এখন আসো “be”-এর past form-এর দুইটার কথায় ।
    এক বচনের ক্ষেত্রে was এবং বহুবচনের ক্ষেত্রে were ব্যবহার করবো ।
    ( you-এর ক্ষেত্রে সব সময় were ব্যবহার হবে । কারণ you-এর একবচন যা, বহুবচন তা। )
    He / she / I was going
    They / you were going
    ( you= তুমি বা তুমরা )
  • Verb-এর P.P form-এর আগে অবশ্যই একটা to have verb বসে ।
    যেমনঃ I had gone I will have been going to . . . . . . .
  •  -Ing যুক্ত verb-এর আগে অবশ্যই একটা to be verb বসে ।
    যেমনঃ I am going I will have been going to . . . . . . . . .
  •  will-এর পর অবশ্যই verb-এর base form বসে ।
    যেমনঃ I will go I will have been going to. . . . . . . . . . . . .

এখন মূল আলোচনায় আসা যাক ।আসার আগে বলুনতো “ I will have been giong to. . .” এই বাক্যে কয়টা নিয়ম প্রযোজ্য ।
– একটা …….দুইটা ……নাহ্ তিনটা নিয়ম প্রযোজ্য ।
– I will have(আমরা যানি will-এর পর verb-এর base form বসে তাই will-এর পর have এই base form বসেছে)
been (আমরা জানি P.P form-এর আগে “to have verb” বসে । তাই been-এর আগে have বসেছে )
going (আমরা জানি -ing যুক্ত verb-এর আগে “to be verb” বসে । তাই going-এর আগে been বাসেছে)
to …………
(দেখলে একই বাক্যে কিভাবে তিনটা নিয়ম প্রয়োগ হল )
উপরের নিওমের আলোকে বলোতো নিচের বাক্যগুলো সঠিক কিনা ?
যদি সঠিক না হয় তবে কেন সঠিক না এবং সঠিক হলে কেমন হবে ?
• He will had been going .
• I will have been gone . (double কনো কিছুই ভালনা । কিন্তু এখানে দুটো P.P form এসেছে তুমি তা শুদ্ধ করো )
• I have been going .
• I had been going .
• I had been gone .
• I have gone .
• I had gone .
• He has going .
• He has gone .
• They was going . (was এবং were-এর ব্যবহার মনে আছেতো)
• He go .
• I goes .
• They plays .
• She cries .
• We flies .
(এভাবে বন্ধুদের জিজ্ঞেস করবে এবং বন্ধুরাও যেন তোমাকে জিজ্ঞেস করে ।)
অধিক অনুশীনিই তোমার উদ্দেশ্যে সফল হতে সাহায্য করবে ।এগুলো ভালো ভাবে রপ্ত হলে right form of verb তোমার জন্য সহজ হবে ।

এখন এসো মূল আলচনায় :

ক অংশ

Shimul eats rice (s যুক্ত হওয়ার কারন মনে আছেতো !)
Shimul is eating rice
Shimul has eaten rice (has যুক্ত হওয়ার কারন মনে আছেতো !)

খ অংশ

Shimul ate rice
Shimul was eating rice (এখানে শিমুলের পরিবর্তে they হলে কী হবে , বলোতো!)
Shimul had eaten rice

গ অংশ

Shimul will eat rice
Shimul will be eating rice
Shimul will have eaten rice (নামের পর has বসে কিন্তু এখানে have কেন বসলো ?)

এই উদাহরনগুলোতে শিমুলের ভাত খাওয়ার কাজটা বিভিন্ন কালে নিয়ে গিয়েছে কোন শব্দটা ?
– “eat” এবং তার আগে অবস্থিত কিছু auxiliary verb তাই না !

ক অংশের
প্রথম উদাহরনে auxiliary verb নাই , তাই eat অর্থাৎ মূল verb-এর form-টাই বাক্যের tense পরিবর্তনের জন্য দায়ী।
দ্বিতীয় উদাহরনে to be verb-এর present form এবং মূল verb-এর ing form-টা বাক্যের tense পরিবর্তনের জন্য দায়ী ।
তৃতীয় উদাহরনে to have verb-এর present form এবং মূল verb-এর P.P form-টাই বাক্যের tense পরিবর্তনের জন্য দায়ী ।
note :( auxiliary verb-গুলো হলো am,is,are,was,were,been,have,has,had,shall,should,will,would, can,could,may,might,do,did,done,need,ought,must,dare ইত্যাদি।
(দাগ দেয়া অংশগুলো এবং colored অংশ এক সুরে পড়বে)
আবার
খ অংশের
প্রথম উদাহরনে auxiliary verb নাই , তাই eat অর্থাৎ মূল verb-এর form-টাই বাক্যের tense পরিবর্তনের জন্য দায়ী।
দ্বিতীয় উদাহরনে to be verb-এর past form এবং মূল verb-এর ing form-টা tense পরিবর্তনের জন্য দায়ী ।
তৃতীয় উদাহরনে to have verb-এর past form এবং মূল verb-এর P.P form-টাই tense পরিবর্তনের জন্য দায়ী ।
গ অংশের
প্রথম উদাহরনে will-টাই বাক্যের tense পরিবর্তনের জন্য দায়ী ।
দ্বিতীয় উদাহরনে will এবং মূল verb-এর ing form-টা tense পরিবর্তনের জন্য দায়ী ।
তৃতীয় উদাহরনে will এবং মূল to have verb-টাই tense পরিবর্তনের জন্য দায়ী ।
(কী কী জিনিস tense পরিবর্তনের জন্য দায়ী তা মুখস্ত করার জন্য বলা হয় নাই, বরং এগুলো বুঝার চেষ্টা করবে )

এখন পৃথক পৃথক ভাবে প্রতিটি অংশ লক্ষো করোঃ

ক অংশ :

1. “shimul eats rice” এখানে “eat” কোন form-এ আছে ?’
– (পাঠকের উত্তর) অব্যশই তা present রুপে আছে ।
– হ্যাঁ ,যখন verb-এর রূপ present তখন তা present indifinit tense বা simple present tense । আবার verb-এর রূপ যদি past হয় তখন তা past indifinit tense বা simple past tense ।
2. shimul is eating rice এখানে eat-এর কোন form ?
– (পাঠকের উত্তর) eat-এর -ing যুক্ত রূপটা বসেছে ।
– -ing যুক্ত verb-এর আগে যে to be verb বসে তা মনে আছে তো !
এখন বলোতো to be verb-এর কোন form-টা বসেছে ?
– (পাঠকের উত্তর) to be verb-এর present form, is বসেছে ।
হ্যাঁ , কিন্তু আরেকটা কথা যে বলা হয় নি !

কয়েকটা নিয়ম লক্ষো করঃ

• মূল verb-এর -ing form-টা দেখলেই বুঝবে যে তা continuous tense ।
o -ing form-এর আগে অবশ্যই একটা to be verb বসবে । এবং ঐ to be verb-এর রূপ দেখে বলতে হবে ঐ বাক্য কোন tense-এর । এখন যদি ঐ to be verb-এর রূপ টা present হয় তাহলে বাক্যটা present continuous tense-এর বাক্য আর যদি ঐ to be verb-এর রূপ টা past form-এর হয় তাহলে বাক্যটা past continuous tense-এর বাক্য । (to be verb-গুলো মুলত এখানে auxiliary verb হিসাবে আছে ।)

• Will দেখে বুঝবে যে তা future tense-এর বাক্য । ( তবে I এর ক্ষেত্রে shall ব্যাবহার হবে,আবার will ব্যাবহারও চলবে আমারা আমাদের সুভিধার্তে will-ই ব্যাবহার করব)

• মূল verb-এর P.P form-এর আগে to have verb থাকলে বুঝতে হবে যে এটা perfect tense-এর বাক্য । এবং ঐ to have verb-এর রূপ দেখে বলতে হবে তা কোন tense-এর perfect ।
যদি ঐ to have verb-এর রূপ টা present হয় তাহলে বাক্যটা present perfect tense-এর বাক্য
আবার যদি ঐ to have verb-এর রূপ টা past form-এর হয় তাহলে বাক্যটা
past perfct tense-এর বাক্য ।

বাংলা এবং english-এর সাথে মিলগুলো লক্ষো করো

• -ing = ত = continuous……..
• Will = ব = future…………..
• To have verb = য় = perfect
• মূল verb-এর present রূপ = ছ / × = present……………
• মূল verb-এর past রূপ = ল = past……………
– এখন বলত shimul is eating rice এটা কোন tense ?
– (পাঠকের উত্তর) ing যুক্ত তাই এটা continuous tense ।
– কোন continuous ? present continuous tense নাকি past continuous tense নাকি future continuous tense ?
– (পাঠকের উত্তর) present continuous tense , ing-যুক্ত রূপ দেখে বললাম continuous এবং to be verb-এর রূপ দেখে বললাম তা present ।
– এই বাক্যে is কেন ব্যেবহার হলো ? am অথবা are ব্যাবহার হতে পারতনা ? কারনগুলো মনে আছে তো !
আচ্ছা ! বলোত shimul was eating rice বাক্যটা কোন tense-এর ?
– (পাঠকের উত্তর) -ing যুক্ত তাই continuous এবং to be verb-এর past form তাই এটা continuous । সুতরাং এটা past continuous tense ।

3. shimul has eaten rice এখানে eat-এর কোন রূপ বসেছে ।
-(পাঠকের উত্তর) এখানে eat-এর P.P form বসেছে ।
– P.P form এর আগে to have verb আছে তাই, বুঝতে হবে যে এটা perfect tense-এর বাক্য এবং এই to have verb-এর রূপ টা present তাই এটা persent perfect tense । তাহলে shimul had eaten rice এটা কোন tense ? -এটা past perfect tense এর বাক্য কারন to have verb আছে তাই বুঝলাম যে perfect এবং ঐ to have verb-এর রূপ past তাই বুঝলাম past perfect tense ।

খ অংশের আলচনার প্রয়োজন নাই (আশা করি তোমরা এমনিতেই বিঝতে পারছ)

গ অংশ :
১. Shimul will eat rice এই বাক্যটা কোন tense -এর?
-will দেখে বঝতে হবে future tense তাই এটা future indifinite tense বা simple future tense । (will-এর পরে যে verb-এর base form বসে , তা মনে আছে তো ! )
২. Shimul will be eating rice-এই বাক্যটা কোন tense-এ পড়ে ?
-(পাঠকের উত্তর) এটা future continuous tense । কারন will দেখে বুঝলাম যে এটা future এবং -ing form দেখে বুঝলাম যে এটা continuous ।
-তুমি কি লক্ষো করেছ, যে will-এর ভয়ে to be verb-টা নড়া চড়া না করে base form-টাই বসেছে । (-ing যুক্ত verb -এর আগে যে to be verb বসে তা মনে আছে তো ! )
৩. Shimul will have eaten rice বাক্যটা কোন tense-এর ?
– (পাঠকের উত্তর) এটা future perfect tense-এর বাক্য ।
– কিভাবে বুঝলে ?
– ( পাঠকের উত্তর ) will দেখে বুঝেছি যে বাক্যটা future tense এবং to have verb দেখে বুঝলাম perfect tense.
– আচ্ছা! আমরা জানি he / she / it বা নামের পর has বসে কিন্তু এখানে shimul এই নামের পর কেন have হলো ?
প্রশ্ন জাগেনা !? আসলে বিষয়টা হলো যে , will-এর শক্তি বেশী তো ,তাই shimul থাকা সত্তেও has-কে আসতে দেয়নি । have-ই বসেছে । যেহেতু আমরা যানি যে will-এর পর verb-এর base form বসে ।
এই তো tense শেষ !!
শেষ করার আগে নিয়মগুলো এক নজর দেখেনেই ।

• মূল verb-এর -ing form-টা দেখলেই বুঝবে যে তা continuous tense । কোন continuous ? তা বুঝতে হবে -ing যুক্ত verb-টির আগে অবস্থিত to be verb-এর রূপ দেখে । ( -ing যুক্ত verb-এর আগে কিন্তু অবশ্যই to be verb বসে )

• Will দেখে বুঝতে হবে যে তা future tense-এর বাক্য (will-এর পর কিন্তু verb-এর base form বসে ) • Have দেখে বুঝতে হবে যে বাক্যটা perfect tense-এর বাক্য । ( Verb-এর P.P form-এর আগে অবশ্যই একটা to have verb বসে )

• Verb-এর আগে কোনো to have verb বা to be verb না হলে ঐ মূল verb-এর রূপ দেখে বলতে হবে যে তা কোন tense-এর বাক্য । (to be verb-টা আসলে auxiliary verb । )

নিওমগুলো মনে রেখে বলোতো নিচের কোনটা কোন tense-এর বাক্য ।

1. He goes (es বা s যুক্ত হওয়ার কারন মনে আছেতো!)
2. I go .
3. I will go .
4. I am going .
5. He is going . (একই tense কিন্তু am/is/are হওয়ার কারন কী?)
6. They are going .
7. I was going .
8. You were going .
9. He will be going .
10. He will have done the work .
11. I had eaten .
12. I have eaten .
13. I went .
14. I will be going .

কয়েকজন বন্ধু মিলে এগুলো practice করবে কারন তুমি তো জানো practice makes a man perfect ( বলতো এটা কোন tense ? )
-বলো তো tense কয় পকার ?
-(পাঠকের উত্তর) তিন প্রকার
-হ্যাঁ মূলোতো তিন পকার ।
ঐ তিন প্রকারেকে আবার চারটা চারটা করে বারটা বানানো হয়েছে ।
অর্থাৎ
* Present indifinite tense
* Present continuous tense
* Present perfect tense Present perfect continuous tense
* Past indifinite tense
* Past continuous tense
Past perfect tense
Past perfect continuous tense
* Future indifinite tense
* Future continuous tense
Future perfect tense
Future perfect continuous tense
Note: * চিহ্নিত tense-গুলো কথ্য ভাষায় সবচেয়ে বেশী ব্যবহৃত হয় ।
আচ্ছা ! বলোতো আমরা কয় প্রকারের tense আলোচনা করেছি ? মাত্র নয় প্রকারের । তাই না !
কারন বাকি তিন প্রকারের ব্যবহার খুবই কম এবং একটু জটিল , যদিও এখন তোমরা বুঝবে । এখন এগুলো নিয়ে আলোচনা করছি ।
বাকি ছিল এই tense-গুলো
1. Present perfect continuous tense
2. Past perfect continuous tense
3. Future perfect continuous tense
আচ্ছা ! এখন এগুলোর একেকটা বাক্য লক্ষো করো
1. I have been reading ……….( Present perfect continuous tense)
2. I had been reading………….( Past perfect continuous tense)
3. I will have been reading ………. (Future perfect continuous tense)
প্রথম বাক্যটা লক্ষো করো:
I have been reading যেহেতু continuous তাই verb-এর সাথে -ing যুক্ত হবে । তখন হবে I reading । আবার যেহেতু perfect তাই to have verb বসবে । এখন হবে I have/has/had reading (to have verb = have / has / had) । আবার যেহেতু present tense-এর বাক্য তাই to have verb-এর present রূপ টা বসেছে । এখন বাক্যটা হবে I have reading । এই বাক্যটা যদি সঠিক হয় তাহলে আমাদের পড়া কোয়েকটা নিয়ম ভুল হয়ে যাবে ।
নিওমগুলো হলো:
1. –ing যুক্ত verb-এর আগে to be verb বসে । ( কিন্তু এখানে to be verb নেই )
2. To have verb-এর পরে verb-এর P.P form বসে ।(কিন্তু এখানে –ing form আছে)
এখন আমাকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে যে, বাক্য ঠিক রেখে নিয়ম পরিবর্তন করব । নিয়ম ঠিক রেখে বাক্য পরিবর্তন করব । আমদের নিয়ম ঠিক রেখে বাক্য পরিবর্তন করতে হবে । তাহলে চলো আমরা নিয়ম অনুযায়ী বাক্যটা পরিবর্তন করি । আমাদের নিয়মটা হলো -ing যুক্ত verb-এর আগে to be verb হয় । (to be verb দ্বারা কি কি বুঝানো হয় তা মনে আচ্ছে তো ! ) । সেই অনুযায়ী বাক্যটা হবে I have am reading, এখানে am ব্যবহার করা কি ঠিক হয়েছে?
– ( পাঠকের উত্তর ) হ্যাঁ, কারন I-এরএর সাথে তো am ব্যবহার হয় ।
– তা ঠিক ,কিন্তু to have verb-এর পর যে verb-এর P.P form বসে (তা মনে আচ্ছে তো ! )
তাহলে বাক্যটা হবে I have been reading । ( have-এর শক্তি বেশি তো তাই, am কে সরিয়ে নিজের নিয়মটাই ঠিক রেখেছে ) ।

দ্বিতীয় বাক্য সম্পর্কে একই কথা (to have verb-এর past রূপ বসেছে যেহেতু এটা past perfect contiuous tense )

তৃতীয় বাক্যটা লক্ষো কর:
“I will have been reading” বাক্যটা কোন tense-এ পড়ে?
– ( পাঠকের উত্তর ) future perfect continuous tense
– বুঝলে কি করে ?
– (পাঠকের উত্তর ) will দেখে বুঝলাম future Have দেখে বুঝলাম perfect -Ing দেখে বুঝলাম continuous .
– এখানে been আসার কারনটা এবং to have verb-এর base form, “have”-টা আসার কারনটা মনে আছে তো !
– (পাঠকের উত্তর) হ্যাঁ, মনে আছে ! Will-এর পর verb-এর base form বসে এবং to have verb-এর পর verb-এর P.P form বসে ।
এই তো tense শেষ ।
এ tense-এর পরে আলোচনা করলাম কারন এগুলোর ব্যবহার খুবই কম । এগুলো শুরুতে আলোচনা করলে পরে কষ্ট হয়ে যেত ।

আচ্ছা !

আরেকটা জিনিস বলা হলো না, এই তিনটা tense-এর সাথে সবসময় সময়ের উল্লেখ থাকবে (বাংলায় সময় বুঝাতে “যাবত” বা “ধরে” হবে । ‘যাবত” হলে for এবং “হইতে/থেকে/ধরে” হলে since হবে ) এতক্ষন আমরা ইংলিশ থেকে এই tense-গুলো চেনার উপায় জানলাম । এখন আমরা বাংলা থেকে এই tense-গুলো চেনার উপায় জানব । তার আগে আমাদের আরো কয়েকটা জিনিসের সাথে পরিচয় হতে হবে । আমরা আগেই জেনেছি যে, এই তিন প্রকারের tense-এ সময়ের উল্লেখ থাকে । সময়ের উল্লেখ থাকা মানে perfect-এর লক্ষন । তাহলে এখন আমরা perfect-এর জন্য দুটো symbol বা প্রতিক পেলাম একটা হল “য়” এবং আরেকটা হল “সময়ের উল্লেখ” । এখন present perfect continuos tense-এর একটা বাক্য লক্ষো করো যেমনঃ “আমি দুই ঘণ্টা যাবত পড়িতেছি” বাক্যটিতে “দুই ঘণ্টা যাবত” দেখে বুঝতে হবে যে তা perfect “ত” দেখে বুঝতে হবে যে তা continuous । “ছ” দেখে বুঝতে হবে যে তা present । একই ভাবে বলোতো “আমি দুই ঘণ্টা যাবত খেলিতে ছিলাম” এটি কোন tense ? বাক্যটিতে “দুই ঘণ্টা যাবত” দেখে বুঝতে হবে যে তা perfect “ত” দেখে বুঝতে হবে যে তা continuous । “ল” দেখে বুঝতে হবে যে তা past । তাহলে বাক্যটি হবে past perfect continuous tense-এর বাক্য । আবার “আমি দুই ঘণ্টা যাবত পড়িতে থাকব”। বাক্যটিতে “দুই ঘণ্টা যাবত” দেখে বুঝতে হবে যে তা perfect । “ত” দেখে বুঝতে হবে যে তা continuous । “ব” দেখে বুঝতে হবে যে তা future । তাহলে বাক্যটি হবে future perfect continuous tense-এর বাক্য । এখন যদি কেউ তোমাকে এরকম বাক্য দিয়ে জিজ্ঞেস করে যে “বলতো এটা কোন tense ?” তখন তুমি এ কৌশল কাজে লাগিয়ে সহজে উত্তর দিতে পারবে । এতক্ষন তো গেল বাক্য থেকে tense বের করার উপায় ।

এখন আমরা আলোচনা করব কিভাবে tense থেকে বাক্য বের করা যায়?

লক্ষ করো !

Indefinite Tense

present Indefinite

*present indefinite-এর বাংলা বাক্য তৈরি করার জন্য , আমাকে চিন্তা করতে হবে “এর প্রতীক কী কী ?” । আমরা জানি present indefinite tense-এর ক্ষত্রে কোনো প্রতীক থাকে না ।
যেমনঃ“আমি লিখি” এখানে কোনো প্রতীক নেই । তাই এ বাক্যটি হচ্ছে present indefinite-এর বাংলা বাক্য । ইংরেজীর জন্য মূল verb-এর present রূপ বসিয়ে দিতে হবে ।
যেমনঃ I write

Past Indefinite

*past-এর প্রতীক “ল” তাই past indefinite tense-এর বাক্যটি হবে “আমি লিখিলাম” । ইংরেজীর জন্য মূল verb-এর past রূপ বসিয়ে দিতে হবে ।
যেমনঃ I wrote

Future Indefinite

*future-এর প্রতীক “ব” তাই future indifinite tense-এর বাক্যটি হবে “আমি লিখিব” । ইংরেজীর জন্য মূল verb-এর আগে will এবং verb-এর base রূপ বসিয়ে দিতে হবে ।
যেমনঃ I will write (will-এর নিয়ম অনুযায়ী verb-এর base রূপ বসেছে )

Continuous Tense

Present Continuous 

*Present continuous tense-এর বাংলা বাক্য তৈরি করার জন্য , আমাকে চিন্তা করতে হবে “এর প্রতীক কী কী?” । আমরা জানি continuousএর প্রতীক “ত”এবং present-এর প্রতীক “ছ” অর্থাৎ Present continuous tense-এর প্রতীক “ত,ছ” ।
যেমন “আমি লিখিতেছি” । তাই এ বক্যটি হচ্ছে Present continuous tense-এর বাংলা বাক্য । ইংরেজীতে “ত”-এর জন্য মূল verb-এর সাথে -ing form এবং “ছ”-এর to be verb-এর present রূপ বসিয়ে দিতে হবে ।
যেমনঃ I am eating ( কখন am,কখন is আর কখন are বসাতে হয় তা মনে আছে তো ! )

Past Continuous

*past-এর প্রতীক “ল” এবং continuous-এর প্রতীক “ত” অর্থাৎ past continuous tense-এর প্রতীক “ত,ল” । তাই past continuous tense-এর বাক্যটি হবে “আমি লিখিতেছিলাম” । ইংরেজীতে “ত”-এর জন্য মূল verb-এর -ing যুক্ত রূপ এবং “ল”-এর জন্য to be verb-এর past রূপ বসিয়ে দিতে হবে ।
যেমনঃ I was eating

Future Continuous

*future-এর প্রতীক “ব” এবং continuous-এর প্রতীক “ত” অর্থাৎ future continuous tense-এর প্রতীক “ত,ব” । তাই future continuous tense -এর বাক্যটি হবে “আমি লিখিতে থাকবো” । ইংরেজীতে “ব”-এর জন্য মূল verb-এর আগে will এবং to be verb-এর base form এবং “ত”-এর জন্য ,verb-এর –ing যুক্ত রূপ বসিয়ে দিতে হবে ।
যেমনঃ I will be eating (will-এর নিয়ম অনুযায়ী verb-এর base রূপ বসেছে এবং ing যুক্ত verb-এর আগে to be verb বসেছে )

Perfect Tense

Present Perfect Tense

*Present perfect tense-এর বাংলা বাক্য তৈরি করার জন্য , আমাকে চিন্তা করতে হবে “এর প্রতীক কী কী ?” । আমরা জানি perfect-এর প্রতীক “য়” এবং present-এর প্রতীক “ছ” অর্থাৎ Present perfect tense-এর প্রতীক “ছ,য়” ।
যেমন: “আমি লিখিইয়াছি” । তাই এ বক্যটি হচ্ছে Present perfect tense-এর বাংলা বাক্য । ইংরেজীতে “য়”-জন্য to have verb এবং “ছ”-এর জন্য to have verb-এর present রূপ বসিয়ে দিতে হবে । (to have verb-এর পরে মূল verb-এর P.P form বসে )
যেমনঃ I have eaten

Past Perfect Tense

*past-এর প্রতীক “ল” এবং perfect-এর প্রতীক “য়” অর্থাৎ past perfect tense-এর প্রতীক “য়,ল” । তাই past perfect tense-এর বাক্যটি হবে “আমি লিখিয়া ছিলাম” । ইংরেজীতে “য়”-জন্য to have verb এবং “ল”-এর জন্য to have verb-এর past form বসিয়ে দিতে হবে । (to have verb-এর পরে মূল verb-এর P.P form বসে ) যেমনঃ I had eaten

Future Perfect Tense

*Future-এর প্রতীক “ব” এবং perfect-এর প্রতীক “য়” অর্থাৎ future pecfect tense-এর প্রতীক “য়,ব” । তাই future perfect tense -এর বাক্যটি হবে “আমি লিখিইয়া থাকবো” । ইংরেজীতে “ব”-এর জন্য will এবং “য়”-জন্য to have verb-এর base form বসবে ।
যেমনঃ I will have eaten (will-এর নিয়ম অনুযায়ী to have verb-এর base রূপ বসেছে এবং to have verb-এর নিয়ম অনুযায়ী মূল verb-এর P.P form বসেছে)

Perfect Continuous Tense

Present perfect continuous

*Present perfect continuous tense-এর বাংলা বাক্য তৈরি করার জন্য , আমাকে চিন্তা করতে হবে “এর প্রতীক কী কী?” । আমরা জানি present-এর প্রতীক “ছ” এবং perfect-এর প্রতীক “য়” বা “সময়ের উল্লেখ” (এটাই এখানে উদ্দেশ্য) এবং continuous-এর প্রতীক “ত” অর্থাৎ Present perfect continuous tense-এর প্রতীক “ছ,ত,সময়ের উল্লেখ” । যেমন “আমি দুই ঘণ্টা যাবত লিখিতেছি” । তাই এ বক্যটি হচ্ছে Present perfect continuous tense-এর বাংলা বাক্য । ইংরেজীতে “সময়ের উল্লেখ”-এর জন্য to have verb এবং “ছ”-এর জন্য to have verb-এর present রূপ এবং “ত”-এর জন্য মূল verb-এর ing যুক্ত রূপ বসিয়ে দিতে হবে । যেমনঃ I have been writting for two hours । (to have verb-এর পরে মূল verb-এর P.P form বসে এবং ing যুক্ত verb-এর আগে to be verb বসে )

Past perfect continuous

*Past-এর প্রতীক “ল” এবং perfect-এর প্রতীক “য়” বা “সময়ের উল্লেখ” (এটাই এখানে উদ্দেশ্য) এবং continuous-এর প্রতীক “ত” অর্থাৎ Past perfect continuous tense-এর প্রতীক “ল,ত,সময়ের উল্লেখ” । যেমন “আমি দুই ঘণ্টা যাবত লিখিতে ছিলাম” । তাই এ বক্যটি হচ্ছে Past perfect continuous tense-এর বাংলা বাক্য । ইংরেজীতে “সময়ের উল্লেখ”-এর জন্য to have verb এবং “ল”-এর জন্য to have verb-এর past রূপ এবং “ত”-এর জন্য মূল verb-এর ing যুক্ত রূপ বসিয়ে দিতে হবে । যেমনঃ I had been writting for two hours । (to have verb-এর পরে মূল verb-এর P.P form বসে এবং ing যুক্ত verb-এর আগে to be verb বসে )

Future perfect continuous

*future-এর-এর প্রতীক “ব” এবং perfect-এর প্রতীক “য়” বা “সময়ের উল্লেখ” (এটাই এখানে উদ্দেশ্য) এবং continuous-এর প্রতীক “ত” অর্থাৎ Past perfect continuous tense-এর প্রতীক “ব,ত,সময়ের উল্লেখ” । যেমন “আমি দুই ঘণ্টা যাবত লিখিতে থাকব” । তাই এ বক্যটি হচ্ছে future perfect continuous tense-এর বাংলা বাক্য । ইংরেজীতে “সময়ের উল্লেখ”-এর জন্য to have verb এবং “ব”-এর জন্য will এবং “ত”-এর জন্য মূল verb-এর ing যুক্ত রূপ বসিয়ে দিতে হবে । যেমনঃ I will have been writting for two hours । (will-এর পর verb-এর base form বসে । to have verb-এর পরে মূল verb-এর P.P form এবং ing যুক্ত verb-এর আগে to be verb বসে ) ।

সতর্কতা:

1. বাংলায় perfect চেনার জন্য দুটো জিনিস, “য়” এবং “সময়ের উল্লেখ” । কিন্তু English-এ একটাই , আর তা হল to have verb ।
2. আমরা shall এবং will নিয়ে মহা বিপদে পড়ে যাই । কখন will ব্যবহার করব আর কখন shall ব্যবহার করব । আমরা যদি আপাতত American নিয়ম অনুসরন করি তাহলে এই সমস্যার সমাধান হয়ে যায় । কারন American-রা সব ক্ষেত্রে will ব্যবহার করে । আর British-রা I-এর সাথে shall এবং you,he,she ইত্যাদি সব ক্ষেত্রে will ব্যবহার করে ।
3. আমরা আগে বলেছি to have verb দেখলেই বুঝবে যে বাক্যটা perfect tense-এর । তাই বলে কি “I have a car” বাক্যটা perfect tense-এর? – না, অবশ্যই না । এখানে নিয়ম হলো যে , to have verb-এর পর,verb-এর P.P form থাকতে হবে । কিন্তু এখানে তা নেই । সুতরাং এটা perfect না । আসলে কথা হলো, to have verb দেখে perfect বলবে তখন , যখন ঐ to have verb-টা auxiliary verb হিসাবে থাকবে । এখন প্রশ্ন হল to have verb-টা কখন auxiliary verb এবং কখন auxiliary verb নয় তা কিভাবে বুঝব ? নিয়মটা হল to have verb-টা তখনই auxiliary verb (সাহায্যকারী) হবে, যখন তার পরে একটা মূল verb থাকবে । আর যদি মূল verb না থাকে তাহলে ঐ auxiliary verb-টাই মূল verb হিসাবে থাকে । যেমনঃ I had a car বা I have a car বা he has a car এখানের had/have/has গুলো মূল verb হিসাবে আছে । কারন এখানে to have verb-এর পর মূল verb নেই । আচ্ছা! I had gone to school এই বাক্যে কিন্তু to have verb-টা auxiliary verb । আবার “Is” সম্পর্কে একই কথা । যেমনঃ This is a car এখানে is -টা মূল verb । is-এর পর মূল verb থাকলে তা auxiliary verb হতো । যেমনঃ He is going (am/is/are/was/wereসম্পর্কে একই কথা । )
4. অতিতে যদি দুটি কাজ হয়ে থাকে এবং কোনটা আগে আর কোনটা পরে তা বুঝানোর প্রয়োজন পড়ে তখন আগে যে কাজটি হয়েছিল তা হবে past perfect tense এবং পরে যে কাজটি হয়ে ছিল তা past indifinite বা simple past tense হবে। যেমনঃ I had written the letter before he arrived (‘before”-এর before-এ হবে past perfect )
আবার He arrived after I had written the letter (“after”-এর after-এ হবে past perfect)
বাক্য দুটির অর্থ একটু ভিন্ন হলেও উদ্দেশ্য একই । (পার্থক্য শুধু before এবং after-এর )
Future perfect সম্পর্কে একই কথা । তখন future-এ দুটি কাজ ঘটবে । একটা আগে অন্যটা পরে ঘটবে ।
যেমনঃ I will have started before the sun will rise (before-এর before-এ হবে future perfect)
আবার The sun will rise after we will have started (after-এর after-এ হবে future perfect) বাক্য দুটির অর্থ একটু ভিন্ন হলেও উদ্দেশ্য একই । (পার্থক্য শুধু before এবং after-এর )

এখন আমরা জানবো কি ভাবে এক tense থেকে অন্য tense-এ যেতে হয় ?

*১ I go —>I went —->I will go
*২I am going—> I was going—> I will be going
*৩ I have gone —>I had gone—> I will have gone
*৪ I have been going—> I had been going —>I will have been going
টিকা : ১ . verb-এর রুপের পরিবর্তনে tense পরিবর্তন হয়েছে ।
২ . to be verb-এর রুপের পরিবর্তনে tense পরিবর্তন হয়েছে ।
৩ /৪ . to have verb-এর রুপের পরিবর্তনে tense পরিবর্তন হয়েছের ।(* দেয়া বাক্যগুলোর ধারাবাহিকতা অনুযায়ী )
• Future-এর জন্য will হবে
                                                                  The End

 [ ভাল লাগলে পোস্ট এ  অবশ্যই লাইক দিবেন , লাইক দিলে আমাদের কোনো লাভ অথবা আমরা কোনো টাকা পয়সা পাই না, কিন্তু উৎসাহ পাই, তাই অবশ্যই লাইক দিবেন । ]

ফেসবুকে আমি